মহারাষ্ট্র ওপেনে লিয়েন্ডার পেজ-পূরব রাজা জুটিকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়নের তাজ ধরে রাখার দৌড়ে এগোলেন রোহন বোপান্না এবং জীবন নেদুচেজিয়ান জুটি।

মঙ্গলবার অবাছাই লি-রাজা জুটিকে তাঁরা ৬-৩, ৬-২ হারিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে উঠে গেলেন বোপান্নারা। পাশাপাশি সিঙ্গলসে দারুণ ভাবে শুরু করলেন রামকুমার রামনাথন। দেশের টেনিস খেলোয়াড়দের মধ্যে এখন সিঙ্গলসের বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়ে সবচেয়ে এগিয়ে থাকা রামকুমার প্রথম রাউন্ডে ৭-৬ (৪), ৬-২ হারান রবার্তো কারবালেস বায়েনাকে। যিনি রামকুমারের চেয়ে বিশ্বর‌্যাঙ্কিংয়ে ৪২ ধাপ এগিয়ে।

রামকুমারের সামনে দ্বিতীয় রাউন্ডে আরও কড়া প্রতিপক্ষ অপেক্ষা করছেন। তাঁকে খেলতে হবে এ বার বিশ্বের ছ’নম্বর মারিন চিলিচের বিরুদ্ধে। সদ্য শেষ হওয়া মরসুমে উইম্বলডনের রানার্স চিলিচের বিরুদ্ধে নামার আগে আত্মবিশ্বাসী রামকুমারও। কিছু দিন আগেই অ্যান্তালিয়া ওপেনে বিশ্বের আট নম্বর ডমিনিক থিয়েমকে হারিয়ে দিয়েছিলেন রামকুমার। চিলিচ ম্যাচে নামার আগে তিনি বলেছেন, ‘‘চিলিচকে আমি খুব সম্মান করি। আমি নিজের সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা করব কোর্টে। ঘরের মাঠের সমর্থকদের সামনে আমি একটা দারুণ লড়াই উপহার দিতে চাই। যা হবে, হবে। আমার কাছে আপনারা আশা করতে পারেন প্রথম থেকে শেষ পয়েন্ট পর্যন্ত দারুণ লড়াই।’’ সঙ্গে তিনি নিজের ফর্ম নিয়ে যোগ করেন, ‘‘নেটে উঠে আসতে আমার কোনও সমস্যা হচ্ছে না। তবে এখনও অনেক দূর যেতে হবে। গত বছর আমি প্রচুর ‘সার্ভ ও ভলি’ খেলেছি। এখানকার কোর্টে দারুণ গতি রয়েছে। তাই এখানেও সেই স্টাইলে খেলার পরিকল্পনা রয়েছে।’’

২৩ বছর বয়সি রামকুমার যে ভাবে কারবালেসের বিরুদ্ধে খেলেছেন, সেটা ধরে রাখতে পারলে তিনি চিলিচকে কড়া প্রতিদ্বন্দ্বীতায় ফেলে দিতে পারেন। যদিও বেশ কয়েকটা সুযোগ পেয়েছিলেন তিনি স্প্যানিশ প্রতিদ্বন্দ্বীকে শুরু থেকেই চাপে ফেলে দেওয়ার। ৩-২ এগিয়ে থাকার সময় আরও এগিয়ে যেতে পারার সুযোগ ছিল তার সামনে। কিন্তু রামকুমার সেই সুযোগ নিতে পারেননি। তা ছাড়া রামকুমারের স্লাইস ব্যাকহ্যান্ড থেকে ম্যাচে ঘুরে দাঁড়ানোর একটা সুযোগ ছিল স্প্যানিশ প্রতিদ্বন্দ্বীর। সেই সুযোগ কাজে লাগাতে পারেননি তিনি।

এ দিন সবচেয়ে বড় অঘটন অবশ্য স্প্যানিশ কোয়ালিফায়ার রিকার্ডো ওজেদা লারার। তিনি ষষ্ঠ বাছাই চেক প্রজাতন্ত্রের জিরি ভ্যাসিলিকে হারান। বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়ে ১৯৮ নম্বরে থাকা লারা বিশ্ব ক্রম পর্যায়ে ৬৮ নম্বরে থাকা প্রতিদ্বন্দ্বী ভ্যাসিলিকে যে এ ভাবে স্ট্রেট সেটে উড়িয়ে দেবেন ভাবা যায়নি। লারা জেতেন ৬-৩, ৭-৬ (৫)।