মুম্বইয়ের যুব বিস্ময় পৃথ্বী শয়ের ব্যাট ঝলসে ওঠা ও দুই প্রতিভাবান ভারতীয় ব্যাটসম্যান লোকেশ রাহুল ও করুণ নায়ারের রানে ফেরা— ভারতে এসে নিউজিল্যান্ডের প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচ থেকে উল্টে ভারতীয় ক্রিকেটই লাভবান হল এ ভাবে। ম্যাচটা ৩০ রানে জিতেও নিল বোর্ড প্রেসিডেন্ট একাদশ।

সতেরোর বিস্ময় যুবক পৃথ্বী শয়ের ব্যাট এ দিন যে ভাবে ঝলসে উঠল ব্রেবোর্ন স্টেডিয়ামে, তার পরে নিউজিল্যান্ডের তারকা পেসার ট্রেন্ট বোল্টও বলতে বাধ্য হলেন, ‘‘ওর ভবিষ্যৎ উজ্জ্বল।’’ এই প্রথম কোনও আন্তর্জাতিক সিনিয়র দলের বিরুদ্ধে মাঠে নেমে এ দিন ৮০ বলে ৬৬ রান করে পৃথ্বী। ন’টা চার ও একটা ছয় হাঁকান তিনি।

বোর্ড দলের হয়ে ওপেন করতে নেমে পৃথ্বী ভারতীয় দলের ওপেনার লোকেশ রাহুলের সঙ্গে ১৪৭ রানের পার্টনারশিপ গড়েন। রাহুল ৭৫ বলে ৬৮ রান করেন। তিন নম্বরে ব্যাট করতে নেমে ৬৪ বলে ৭৮ রান করেন করুণ নায়ার। টপ অর্ডারের এই তিন ব্যাটসম্যানের তৎপরতায় বোর্ড দল ন’উইকেটে ২৯৫ রান তোলে। পাল্টা ব্যাট করতে নেমে নিউজিল্যান্ড ২৬৫ রানে অল আউট হয়ে যায়।

পৃথ্বীর ব্যাটিং দেখে বোল্ট এ দিন ম্যাচের শেষে বলেন, ‘‘আমি ওর কথা শুনেছিলাম। মাত্র ১৭ বছর বয়সে যে এত ভাল খেলছে, তা বিশ্বাস করিনি। কিন্তু দেখলাম দারুণ খেলছে। আজ শুরুতে বল ভাল সুইং করছিল। কিন্তু তাতেও ওকে চাপে ফেলা যায়নি। সব কিছু ঠিক থাকলে ওর ভবিষ্যৎ উজ্জ্বল। প্রথম দেখাতেই মনে দাগ কেটেছে ছেলেটি।’’  

আরও পড়ুন: ৯ স্লিপ নিয়ে ডিন্ডা-শামির আগুন

অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসনের ৪৭ ও টম ল্যাথামের ৫৯ রানের ইনিংসও তাদের লক্ষ্যে পোঁছতে সাহায্য করেনি। বোর্ড দলের দুই তরুণ বোলার জয়দেব উনাদকট (৩-৬২) ও শাহবাজ নাদিমের (৩-৪১) তৎপরতা বিপক্ষ ব্যাটিংয়ে ধস নামায়। বোল্টও এ দিন পাঁচ উইকেট পান। কিন্তু ম্যাচ জিততে না পারায় হতাশ তিনি। বলেন, ‘‘এখানকার পরিবেশের সঙ্গে মানিয়ে নিতে পেরেছি আমরা, এটা ভাল। কিন্তু ম্যাচটা জিততে না পারাটা হতাশাজনক।’’

বিপক্ষের টপ অর্ডার ব্যাটসম্যানদের প্রশংসা করে বোল্ট বলেন, ‘‘এখানে ভাল লাইন আর লেংথে বোলিং করাই সব নয়। আরও কিছু দরকার। ওরা আমাদের অনেক কৌশলই অকেজো করে দিয়েছে। ওদের দুই ওপেনারদের কৃতিত্ব দিতেই হবে। অন্য ব্যাটসম্যানদের চাপ অনেক কমিয়ে দেয় ওরা।’’ প্রথম তিন ব্যাটসম্যান বড় রান করে চলে যাওয়ার পরে বোর্ড দলের শ্রেয়স আইয়ার (১৭), ঋষভ পন্থ (১৫), গুরকিরাত সিংহরা (১১) কেউই ভাল রান পাননি।