মাঠে ছিলেন সত্তর মিনিট। তার মধ্যে পেনাল্টি থেকে গোল করলেন। করালেন। নষ্ট করলেন পেনাল্টি। তার পরে কনুই চালিয়ে দেখলেন হলুদ কার্ডও।

লিলেঁ-তে জাপানের বিরুদ্ধে অনুষ্ঠিত ফিফা ফ্রেন্ডলি ম্যাচে এটাই নেমার-এর এক ঝলকে পারফরম্যান্স। ম্যাচে যদিও আক্রমণে ঝড় তুলে ৩-১ জিতল নেমারের ব্রাজিল।

রাশিয়া বিশ্বকাপের জন্য যোগ্যতাঅর্জন পর্বে গ্রুপের আট ম্যাচে কোনও গোল খায়নি জাপান। করেছে ২৭ গোল। এ দিন কিন্তু শুরু থেকেই নেমার, জেসুস ও উইলিয়ান-এর ত্রিফলা আক্রমণ ভাগের সামনে চাপে পড়ে গিয়েছিলেন জাপানের ডিফেন্ডাররা। শুরু থেকেই নেমারদের একের পর এক আক্রমণ আছড়ে পড়ছিল জাপান রক্ষণে। ন’মিনিটের মধ্যেই প্রথম গোল তুলে নেয় ব্রাজিল। জাপানের বক্সে ফার্নান্দিনহোকে অবৈধ ভাবে বাধা দিয়েছিলেন জাপানের ইওশিদা। রেফারি ভিডিও অ্যাসিস্ট্যান্ট রেফারির সঙ্গে আলোচনা করে পেনাল্টির নির্দেশ দিলে নেমার গোল করে যান।

এর কিছু পরেই গ্যাব্রিয়েল জেসুস-কে জাপানের বক্সে ফাউল করা হলে রেফারি ফের পেনাল্টির নির্দেশ দেন। এ বার যদিও সেই পেনাল্টি নষ্ট করেন নেমার। সতেরো মিনিটে  কর্নার পায় ব্রাজিল। সেই কর্নার জাপানি ডিফেন্ডাররা বিপন্মুক্ত করলেও সেখান থেকে ছিটকে আসা বলে জোরালো শট করে গোল করেন মার্সেলো।

৩৬ মিনিটে প্রতি-আক্রমণে নেমার মাঝমাঠ থেকে বল বাড়ান ওভারল্যাপে আসা রাইটব্যাক ড্যানিলো-কে। ড্যানিলোর নিখুঁত ক্রসে পা ছুঁইয়ে গোল করেন গ্যাব্রিয়েল জেসুস।

প্রথমার্ধেই ৩-০ হয়ে যাওয়ার পরে দ্বিতীয়ার্ধে একটু হাল্কা মেজাজে খেলতে শুরু করেছিল ব্রাজিল। প্রথম গোলকিপার অ্যালিসন-কে বসিয়ে কোরিন্থিয়ান্সের ক্যাসিওকে নামিয়েছিলেন ব্রাজিল কোচ তিতে। দ্বিতীয়ার্ধে ম্যাচে ফেরে জাপান। ৬২ মিনিটে কর্নার থেকে দুরন্ত হেডে জাপানের হয়ে গোল করে ব্যবধান কমান মাকিনো। এই গোলের মিনিট চারেক আগেই নেমারের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়, ইয়োসুকে ইদেগুচি-র। রেফারি কী ঘটেছিল তা জানতে চান ভিডিও অ্যাসিস্ট্যান্ট রেফারি-র কাছে। তিনি পুরো ঘটনা খতিয়ে দেখে জানান, নেমার কনুই চালিয়েছেন ইদেগুচিকে। এর পরেই রেফারি হলুদ কার্ড দেখান নেমারকে। এর কিছু পরেই ব্রাজিল কোচ তিতে নেমারকে তুলে নামিয়ে দেন শাখতার ডনেস্ক-এর স্ট্রাইকার টাইসন-কে।

নেমারের হলুদ কার্ড দেখায় ব্রাজিল কোচ যে খুশি হননি ম্যাচে শেষে তা ধরা পড়েছে তিতে-র প্রতিক্রিয়ায়। ব্রাজিল কোচ বলে যান, ‘‘বিশ্বকাপের ম্যাচ কল্পনা করে এই প্রীতি ম্যাচগুলোয় নামছি। এটা পরীক্ষা নয়। প্রস্তুতি চলছে। এখানে ফুটবলারদের পারফরম্যান্সটাই গুরুত্বপূর্ণ। তবে হলুদ কার্ডের ফাঁদে পড়ার প্রবণতাও বন্ধ করতে হবে। ভবিষ্যতে এর মাশুল গুণতে চাই না।’’

ব্রাজিলের পরবর্তী প্রীতি ম্যাচ ১৪ নভেম্বর, ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে।