আইপিএল প্লেয়ার ধরে রাখার নিয়ম নিয়ে জট পাকতে শুরু করেছে এখন থেকেই। কোনও ফ্র্যাঞ্চাইজির সঙ্গে কোনওও ফ্র্যাঞ্চাইজির মতের মিল হচ্ছে না। আইপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের বেধে দেওয়া নিয়ম অনুযায়ী তিনজন প্লেয়ারকে ধরে রাখতে পারবে সব দল। তার মধ্যে দু’জন ভারতীয় হতে হবে। কিন্তু অনেক ফ্র্যাঞ্চাইজি চাইছে পাঁচজন প্লেয়ারকে ধরে রাখতে। পরিস্থিতি বেশ কঠিন। ২১ নভেম্বর পরবর্তী আইপিএল রোডম্যাপ ঠিক করতে বসবে আলোচনার আসর। সেখানে এটাই যে মূল বিষয় হয়ে উঠবে সেটাই স্বাভাবিক।

আরও পড়ুন

‘কপিল দেব কিংবদন্তি, আমি থাকি হার্দিকই’

আট দলের মধ্যে ছয় দলই চাইছে কম করে চার থেকে পাঁচজন প্লেয়ারকে রেখে দিতে দেওয়া হোক। আগে যারা কোনও প্লেয়ারকেই ধরে রাখার পক্ষে ছিল না তারাও চাইছে প্লেয়ার ধরে রাখতে। যেমন মুম্বই ইন্ডিয়ান্স চাইছে দলের টপ প্লেয়ার রোহিত শর্মা, হার্দিক পাণ্ড্য ও জশপ্রীত বুমরাহকে ধরে রাখতে। কিন্তু এই প্লেয়াররাই চাইছে নিলামে উঠতে। তা হলে তাঁদের রোজগার বাড়বে। যেটা পৌঁছতে পারে ২৫ কোটি বছরে।

আরও পড়ুন

টেস্টের আগে ইডেনে হঠাৎ ধোনি-কপিল

এ দিকে চেন্নাই সুপার কিংস ও রাজস্থান রয়্যালসের টার্গেটে রয়েছে পুণে ও রাজকোট দলের প্লেয়াররা। এ ছাড়া ২০১৫ প্লেয়ার ড্রাফট থেকেও এই দুই দল প্লেয়ার নিতে পারে।  যেখানে ধোনি, সুরেশ রায়নার মতো ক্রিকেটাররা রয়েছেন। কিন্তু এই দুই দলের তিন জন প্লেয়ার সঞ্জু স্যামসন, করুণ নায়ার ও ক্রিস মরিস এই মুহূর্তে দিল্লি ডেয়ারডেভিলসের হয়ে খেলে। এখন দেখার আইপিএল-এর নতুন নিলামের এই সমস্যাগুলো কী করে সামলায় বিসিসিআই।