অনূর্ধ্ব-১৭ বিশ্বকাপ শেষ হয়েছে অনেকদিন হল। ভারতকে সব ম্যাচ হেরে ছিটকে যেতে হয়েছে গ্রুপ পর্ব থেকেই। তবুও সংবর্ধনা শেষ হচ্ছে না রহিম আলি, অমরজিতদের। এ বার যেন সব থেকে সম্মান পেল দেশের ফুটবলকে একটা মাত্রায় পৌঁছে দেওয়া এই ছোট ছোট ছেলেগুলো।

এই দল থেকেই বেশ কয়েকজনকে জুড়ে দেওয়া হয়েছিল অনূর্ধ্ব-১৯ এএফসি চ্যাম্পিয়নশিপের কোয়ালিফাইং পর্বের ম্যাচে। সৌদি আরব থেকে খেলে শুক্রবারই দেশে ফিরেছে দল। তার পরই নরেন্দ্র মোদীর নিমন্ত্রণে প্রধানমন্ত্রীর অফিসে হাজির হয়েছিল পুরো দল। যেখানে পুরো দলের সঙ্গে পরিচয়ের পর মোদী বলেন, ‘‘আমি ব্যাক্তিগতভাবে চেয়েছিলাম সবার সঙ্গে দেখা করতে। আমি ওদের মধ্যে স্পার্ক দেখতে পেয়েছি।’’ এর পর ছেলেদের উদ্দেশে মোদী বলেন, ‘‘তোমাদের পারফরমেন্সের জন্যই পুরো দেশ এখন তোমাদের চেনে। এটা দায়িত্ব অনেকটাই বাড়িয়ে দিয়েছে।’’

আরও পড়ুন

চলে এল ২০১৮ ফিফা বিশ্বকাপের অফিশিয়াল বল

প্রধানমন্ত্রী এই দলকে একসঙ্গে রাখার অনুরোধ জানিয়েছেন। যাতে কয়েক বছর পর ওরা পেশাদার ফুটবলার হিসেবে উঠে আসতে পারে। বলেন, ‘‘অনূর্ধ্ব-১৭ বিশ্বকাপ ছিল ভবিষ্যতের প্রস্তুতি। আমি আশা করব ওরা ৫-৭ বছর একসঙ্গে থাকবে। এর পর দেশের প্রতিনিধিত্ব করবে।’’ বিশ্বকাপের উদ্বোধনে দিল্লির জওহরলাল নেহরু স্টেডিয়ামে উপস্থিত ছিলেন মোদী। এদিন সেই ম্যাচের সঙ্গে সঙ্গে জিকসনের গোলের প্রসঙ্গেও কথা বলেন তিনি। বলেন, ‘‘জিকসনের গোল আমাদের কাছে উৎসবের মতো ছিল।’’ প্রধমানমন্ত্রীর সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন ক্রীড়ামন্ত্রী রাজ্যবর্ধন রাঠৌরও।

অনূর্ধ্ব-১৭ ও ১৯ দলকে এক করে এ বার আই লিগের দল তৈরি করছে ফেডারেশন।