হঠাৎ করে এমন সিদ্ধান্ত নেবেন সেটা হয়তো কেউই ভাবতে পারেননি। সে সমর্থক হোক বা ক্লাব কর্তারা। কিন্তু চেন্নাই সিটি এফসির কাছে ১-২ গোলে হেরে মোহনবাগান কোচের পদ থেকে সরে দাঁড়ালেন সঞ্জয় সেন।

পর পর তিন ম্যাচে ড্র। এই ম্যাচ থেকেই জিতে ঘুরে দাঁড়ানোর কথা ভেবেছিলেন সঞ্জয়। কিন্তু তেমনটা হল না। বরং সদ্যজাত দলের কাছেই হেরে যেতে হল মোহনবাগানকে। গোল হজম করে সমতায়ও ফিরেছিল বাগান। কিন্তু শেষ পর্যন্ত সেই ফলও ধরে রাখতে পারেনি তারা। সঞ্জয় সেন বলেন, ‘‘পর পর তিন ম্যাচ ড্রয়ের পর ভেবেছিলাম এই ম্যাচে ঘুরে দাঁড়াব। কিন্তু সেটা হল না।’’

অ্যারোজের বিরুদ্ধে ঘরের মাঠে আটকে যাওয়ার পরই সঞ্জয়ের নামে ‘গো ব্যাক’ স্লোগান উঠেছিল। এ দিনও তার অন্যথা হয়নি। গ্যালারি থেকে আবারও একই স্লোগান উঠল। ম্যাচ হেরে সাংবাদিক সম্মেলনে এসে নিজের সরে দাঁড়ানোর কথা জানিয়ে দিলেন সঞ্জয় সেন। তিনি বলেন, ‘‘চার ম্যাচে আটকে যাওরা পর আর কোনও আশা দেখছি না। লিগ শেষ। এর পর মোহনবাগান চ্যাম্পিয়নও হতে পারে। কিন্তু আমি সরে দাঁড়াচ্ছি।’’

আরও পড়ুন
জয়ে ফিরলেও মন ভরাতে ব্যর্থ লাল-হলুদ

এ দিন গ্যালারি থেকে সঞ্জয় সেনকে লক্ষ্য করে থুথুও ছেটানো হয়। সে কথা সাংবাদিক সম্মেলনে এসে জানালেন স্বয়ং সঞ্জয় সেন। এমন কী সাংবাদিক সম্মেলন চলাকালীন সঞ্জয় সেনকে উদ্দেশ্য করে পাথরও ছোড়া হয়। অল্পের জন্য তাঁর গায়ে লাগেনি। মোহনবাগানের কোচের দায়িত্ব ছেড়ে এখন পরিবার, বন্ধুদের সঙ্গে সময় কাটাতে চান সঞ্জয় সেন। বলেন, ‘‘মোহনবাগানের খেলা তো দেখবই। কিন্তু পরিবার, বন্ধু, অফিস নিয়েই থাকতে চাই।’’

সঞ্জয় সেনের পদত্যাগ নিয়ে মোহনবাগান অর্থ সচিব দেবাশিস দত্ত বলেন, "মৌখিক ভাবে উনি আমায় জানিয়েছেন এই বিষয়ে। এক জন কোচ মানসিক ভাবেই যখন আর দলের সঙ্গে থাকতে চান না, তখন আমার মনে হয় না তাঁকে জোর করার কোনও যৌক্তিকতা আছে। ওনার পদত্যাগ গৃহীত হয়েছে। আমরা যত তাড়াতাড়ি সম্ভব নতুন কোচের নাম জানাব।"

সঞ্জয় সেন হঠাৎ পদত্যাগ করে চলে যাওয়ার পর আপাতত সহকারী কোচ শঙ্করলাল চক্রবর্তীর উপরই আস্থা রাখছেন মোহনবাগান কর্তারা।
অস্ট্রেলীয় কোচ আর্থার পাপাস-সহ কয়েকজনের নাম বাজারে ঘোরাফেরা করলেও তাতে গুরুত্ব দিচ্ছেন না কোনও মোহনবাগান কর্তা। মোহনবাগানের পরের ম্যাচ আইজলের বিরুদ্ধে ৭ জানুয়ারি। ১০ জানুয়ারি তাদের খেলতে হবে মিনার্ভা পঞ্জাবের সঙ্গে। দুটো ম্যাচই যুবভারতীতে। ওই ম্যাচে সনি নর্দের চোট সারিয়ে দলে ফেরার কথা। খেলতে পারেন ক্যামেরন ওয়াটসন। কর্তারা মনে করছেন, সনি-ওয়াটসন নামলে টিমের চেহারা বদলে যাবে। দল জিততে শুরু করবে। শঙ্করলালই এই মুহূর্তে যোগ্য কোচ হবেন। অন্য কোচ আনলে সমস্যা হতে পারে।