যেখান থেকে কোনর ম্যাকগ্রেগর উঠে এসেছেন, সেই ইউএফসি-তে (আল্টিমেট ফাইটিং চ্যাম্পিয়নশিপ) এই প্রথম লড়াই করছেন কোনও ভারতীয় বংশোদ্ভূত মিক্সড মার্শাল আর্টস ফাইটার। তিনি— কানাডার বাসিন্দা অর্জন সিংহ ভুল্লার। এই মুহূর্তে ভারতে রয়েছেন তিনি। যাঁর লক্ষ্য এখন ইউএফসি-তে ভারতের নামটা প্রতিষ্ঠা করা। পাশাপাশি কয়েক দিনের ভারত সফরে তিনি আরও একটি জিনিস দেখে যেতে চান—বিরাট কোহালি কেমন ফুটবল খেলেন!

৬ ফিটের ওপর উচ্চতা। ১২০ কিলো ওজন। কুস্তি থেকে মিক্সড মার্শাল আর্টসে আসার পরে এখনও অপরাজিত। ইউএফসি অভিষেকেই জিতেছেন। মুম্বই থেকে ফোনে বলছিলেন, ‘‘ইউএফসি-র মতো বিশ্বব্যাপী জনপ্রিয় ইভেন্টে ভারতের নামটা ছড়িয়ে দিতে চাই।’’ পাশাপাশি তিনি ধন্যবাদ দিচ্ছেন বিরাট কোহালি এবং তাঁর টিম-কে। ইউএফসি-কে তুলে ধরার একটা উপযুক্ত মঞ্চ দেওয়ার জন্য। একই সঙ্গে ৩১ বছর বয়সি এই শিখ যুবক মুখিয়ে আছেন বিরাটের ফুটবল দক্ষতা দেখতে।  

আরও পড়ুন:  বাঁ-হাতিদের খেলে নামুক কোহালিরা

আগামী রবিবার, আন্ধেরিতে বিরাট কোহালি বনাম অভিষেক বচ্চনের টিমের মধ্যে যে চ্যারিটি ম্যাচ হতে চলেছে, সেই ম্যাচে উপস্থিত থাকবেন ভুল্লার। জানা গিয়েছে, টিম কোহালির পক্ষ থেকে তাঁকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। তবে ফুটবল খেলতে পারেন না বলে মাঠে নামবেন না। ‘‘আমি ওই ম্যাচে থাকতে পারব ভেবে রীতিমতো উত্তেজিত বোধ করছি। ও রকম একটা মঞ্চে ইউএফসি-র প্রতিনিধিত্ব করতে পারাটা বিশাল ব্যাপার,’’ আনন্দবাজারকে বললেন তিনি।

এই মঞ্চে ভুল্লার পেয়ে যাবেন কোহালিকেও। ‘‘আমি সব সময় সফল মানুষদের সঙ্গে মিশতে ভালবাসি। সাফল্যের প্রতি সব সময় আকৃষ্ট হই। বিরাটের মতো সফল আর কে আছে!’’ ক্রিকেটার বিরাট সম্পর্কে জানেন। এ বার ফুটবলার বিরাটকেও দেখে নিতে চান তিনি। ‘‘আমি খেলতে পারব না, কিন্তু গ্যালারিতে বসে খেলাটা উপভোগ করব। দেখা যাক কে কেমন খেলে।’’ যে ম্যাচে তিনি একদিকে দেখতে পাবেন কোহালি, এমএস ধোনি, হকি তারকা পি আর সৃজেশ, হার্দিক পাণ্ড্যদের। অন্য দিকে অভিষেকের টিমে থাকবেন রণবীর কপূর, অর্জুন কপূর, দিনো মোরিয়া-রা।

তাঁর পূর্বপূরুষ পঞ্জাব থেকে কানাডায় চলে গিয়েছিলেন। কানাডার হয়ে কুস্তিতে কমনওয়েলথে সোনাও জেতেন ভুল্লার। কুস্তি থেকে মিক্সড মার্শাল আর্টস— কতটা কঠিন ছিল মানিয়ে নেওয়া? ভুল্লার বলছেন, ‘‘খুব একটা সমস্যা হয়নি। কারণ কুস্তি লড়া অনেক কঠিন ছিল। আমার কোনও সমস্যা হয়নি।’’ কোনও সময় কি ম্যাকগ্রেগরের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের ইচ্ছা আছে? ভুল্লারের সাফ কথা, ‘‘কোনরের ওজন আমার চেয়ে অনেক কম। আমি হেভিওয়েট। আমার সঙ্গে ওর লড়াই হবে না।’’ 

ভারতে ইউএফসি কতটা জনপ্রিয় হবে? ভুল্লার আশাবাদী। ‘‘কেন হবে না? ভারতীয়রা বক্সিং এবং কুস্তিতে খুব ভাল পারফর্ম করছে। ওরা এমএমএ-তেও সফল হবে।’’ পাশাপাশি, ভারতীয় দর্শকরাও একে গ্রহণ করবে বলে মনে হয় তাঁর। ‘‘বিশ্বের সব জায়গায় টাকা দিয়ে ইউএফসি লড়াই দেখতে হয় টিভি-তে। ভারতে সেটা হয় না।’’ ভারতে ভুল্লারের লড়াই দেখা যাবে শুধু সোনি ইএসপিএনে। 

তবে ভুল্লার এখন তাকিয়ে আছেন রবিবারের রাতের দিকে। যখন ফুটবলার কোহালি নেমে পড়বেন বল পায়ে।