ক্রিকেটবিশ্ব এখন সম্মোহিত একটা নামের সামনে। বিরাট কোহালি। গোটা দুনিয়া আপ্লুত কোহালির ব্যাটিং ম্যাজিকে। এমনকী ভারত অধিনায়কের ভক্তদের মধ্যে রয়েছেন ওয়াঘার ও-পারের ক্রিকেট কিংবদন্তিরাও। অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ডের সঙ্গে বিরাট প্রশংসায় মেতেছেন পাকিস্তানের ক্রিকেটারেরাও।

যে তালিকায় প্রথমেই আছেন জাভেদ মিয়াঁদাদ। প্রাক্তন পাক ক্রিকেটার পরিষ্কার বলে দিয়েছেন, ‘‘কোহালি এক জন জিনিয়াস। ও বিশ্বসেরা ব্যাটসম্যান।’’ পাকিস্তানের এক ওয়েবসাইটে সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে মিয়াঁদাদ বলেছেন, ‘‘বিরাট কোহালি টেকনিক্যালি এতটাই ভাল যে, যখনই ব্যাট করতে আসছে, তখনই বড় রান করছে। এক জন ব্যাটসম্যান যদি টেকনিক্যালি ভাল না হয়, তবে মাঝেমধ্যে রান করতে পারে। ধারাবাহিক ভাবে রান করা সম্ভব নয়। কোহালি সেটাই সত্যি বলে প্রমাণ করে দিয়েছে।’’

তবে মিয়াঁদাদ যাঁকে এই প্রজন্মের সেরা ব্যাটসম্যান বলছেন, সেই কোহালিকে আরও বড় সার্টিফিকেট দিচ্ছেন অস্ট্রেলিয়ার প্রাক্তন অধিনায়ক মাইকেল ক্লার্ক। বৃহস্পতিবার তিনি টুইট করেন, ‘সর্বকালের সেরা ওয়ান ডে ক্রিকেটার।’ এর আগে ইংল্যান্ডের প্রাক্তন অধিনায়ক মাইকেল ভনও বলেছিলেন, ‘‘বিরাট কোহালিই কি তবে সর্বকালের সেরা ওয়ান ডে ক্রিকেটার?’’  আনন্দবাজার পত্রিকায় বৃহস্পতিবার তাঁর কলামে প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেটার অশোক মলহোত্রও পরিষ্কার লিখেছিলেন, ‘‘বিরাটই সর্বকালের সেরা ওয়ান ডে ক্রিকেটার।’’

আরও পড়ুন: দৌড়ে ১০০, ভারতীয়দের মধ্যে প্রথম বিরাট

কেন তিনি কোহালির প্রশংসা করছেন, তার ব্যাখ্যাও দিয়েছেন মিয়াঁদাদ। তাঁর কথায়, ‘‘আমার কাছে সেরা ব্যাটসম্যান হতে গেলে তাঁর একটা গুণ থাকতেই হবে। সেটা হল, বিপক্ষ বোলারদের শক্তি-দুর্বলতা চট করে বুঝে নিয়ে নিজের ব্যাটিংয়ে টেকনিক্যাল পরিবর্তন করতে পারার ক্ষমতা। কোহালির সেটা পুরো মাত্রায় আছে। কোনও সন্দেহ নেই, ও বিশ্বের সেরা ব্যাটসম্যান।’’

পাকিস্তানের আরও এক কিংবদন্তি ওয়াসিম আক্রমও মুগ্ধ কোহালির পারফরম্যান্স দেখে। তিনি বলেছেন, ‘‘কোহালি এক কমপ্লিট ক্রিকেটার। ওকে যত দেখছি, ততই মুগ্ধ হচ্ছি।’’ কেন কোহালিকে ‘কমপ্লিট ক্রিকেটার’ বলছেন আক্রম, তাঁর ব্যাখ্যাও প্রাক্তন পাক অলরাউন্ডার দিয়েছেন। বলেছেন, ‘‘একটা সময় ব্যাটসম্যান বুঝে যায়, কোন পরিস্থিতিতে কী রকম খেললে রান আসবে। কোন পরিস্থিতিতে কী রকম শট খেলতে হবে। কোহালি এই ব্যাপারটা দু’-তিন বছর আগেই বুঝে গিয়েছিল। তা ছাড়া ওর ফিটনেসও অসাধারণ পর্যায়ের।’’

কোহালির ব্যাটিং দেখা যে একটা চিত্তাকর্ষক ব্যাপার, সেটা বলেছেন আক্রম। তাঁর কথায়, ‘‘মাঝে মাঝে মনে হয়, আমি যদি এখন ক্রিকেট খেলতাম, তা হলে কোহালিকে কী ভাবে বল করতাম। এটাও বুঝতে পারি, কোহালিকে বল করাটা মোটেই সহজ কাজ হতো না। ও একজন কমপ্লিট ক্রিকেটার। আমার মনে হয়, সচিন তেন্ডুলকরের পরে এখন বিরাট কোহালির সময় এসেছে।’’

কোহালির এই ইনিংসে মুগ্ধ সচিনও। গত কালই তিনি মন্তব্য করেন, মাঠে নামলে সেঞ্চুরি করাটা বিরাটের অভ্যাস হয়ে গিয়েছে। প্রশংসা ভেসে এসেছে অনেক প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেটারের কাছ থেকেও। যেমন ভি ভি এস লক্ষ্মণ টুইট করেন, ‘‘দারুণ দায়িত্ব এবং পরিণতবোধের পরিচয় দিয়েছে কোহালি। আমার দেখা অন্যতম সেরা ওয়ান ডে সেঞ্চুরি। দুর্দান্ত খেলেছ।’’

শুধু ব্যাটসম্যান নয়, অধিনায়ক কোহালির প্রশংসাও করেছেন আক্রম। বলেছেন, ‘‘কোহালি হল এমন একজন অধিনায়ক, যে সামনে থেকে দলের নেতৃত্ব দেয়। ও দুর্দান্ত একজন অ্যাথলিট। সব ধরনের ক্রিকেটে রান পেয়েছে। সব ধরনের পিচে রান করেছে। আমার কাছে তাই ও একজন কমপ্লিট ক্রিকেটার।’’ আক্রম মনে করেন, ব্যাটসম্যান হিসেবে কোহালি যে সাফল্যটা পেয়েছেন, সেটাই তাঁকে সফল ভাবে নেতৃত্ব দিতে সাহায্য করেছে। আক্রমের বক্তব্য, ‘‘ব্যাটিং এবং ক্যাপ্টেন্সি— এই দু’টোর পারস্পরিক যোগাযোগ আছে। একটার সাফল্য অন্যটার সঙ্গে জড়িয়ে থাকে।’’