ছাত্রছাত্রীদের সামাজিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে এবং যৌন হেনস্থা রুখতে রাজ্যের প্রতিটি স্কুলে কমিটি তৈরির নির্দেশ দিয়েছে শিক্ষা দফতর। একইসঙ্গে সব স্কুলে প্রথম থেকে অষ্টম শ্রেণির ক্লাসে সিসিটিভি ক্যামেরা বসানোর নির্দেশিকাও জারি হয়েছে।

প্রায় এক সপ্তাহ আগে ওই নির্দেশ যখন জারি হয়, তখনও জি ডি বিড়লা স্কুলের ঘটনা সামনে আসেনি। ওই ঘটনার পরে সরকারি নির্দেশিকা আরও জোরদার হল বলে মনে করছে শিক্ষা মহল। শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানান, স্কুলের পরিকাঠামো উন্নয়ন এবং পরিষেবাকে আরও জোরদার করতেই এই নির্দেশ। তবে, রাজ্য প্রাথমিক শিক্ষা সংসদের চেয়ারম্যান মানিক ভট্টাচার্য বলেন, ‘‘খুদে পড়ুয়াদের নিরাপত্তা দেওয়ার জন্য আমরা নিরন্তর কাজ করি।
এর সঙ্গে সাম্প্রতিক ঘটনার কোনও সম্পর্ক নেই।’’

শিক্ষা দফতর সূত্রে খবর, প্রথম থেকে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত ছাত্রছাত্রীদের জন্য ‘স্টুডেন্টস সেফটি অ্যান্ড সিকিউরিটি কমিটি’ নামে প্রস্তাবিত ওই কমিটির মাথায় থাকবেন স্কুলের প্রধান শিক্ষক বা শিক্ষিকা। সদস্য হিসেবে থাকবেন স্কুলের সব থেকে সিনিয়র শিক্ষিকা, দু’জন অভিভাবক প্রতিনিধি এবং স্থানীয় সরকারি স্বাস্থ্যকেন্দ্রের চিকিৎসক। যদি কোনও স্কুলে সিনিয়র শিক্ষিকা না থাকেন, সে ক্ষেত্রে সিনিয়র শিক্ষককে রাখা যাবে। অভিভাবক প্রতিনিধিরা মহিলা হলে ভাল। না হলে অন্তত একজন মহিলা রাখতেই হবে।

বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ‘অ্যান্টি র‌্যাগিং কমিটি’ যে রকম কাজ করে, অনেকটা সে ভাবেই কাজ করবে ওই কমিটি। ছাত্রছাত্রীরা কোনও ভাবে হেনস্থার স্বীকার হচ্ছে কিনা, তারা নিয়মিত ভিটামিন ট্যাবলেট খাচ্ছে কিনা, শিক্ষক-শিক্ষিকারা কোনও পড়ুয়ার সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করছেন কিনা, মিড ডে মিল কেমন চলছে—এ সব তদারক করাই হবে ওই কমিটির মূল কাজ। অভিভাবকেরা তাঁদের বক্তব্য লিখিত ভাবে ওই কমিটির
কাছে জানাতে পারবেন। সরকারি নির্দেশে জানানো হয়েছে, কমিটি প্রতি দু’মাস অন্তর বৈঠক করে সংশ্লিষ্ট জেলার স্কুল পরিদর্শকের কাছে রিপোর্ট পাঠাবে।

ইতিমধ্যেই বেশ কিছু স্কুলে সেই কমিটি তৈরির কাজ শুরু হয়ে গিয়েছে। সোমবার হাওড়ার বাগনান ব্লকের দক্ষিণ চক্রের স্কুল পরিদর্শক অফিসের উদ্যোগে বিভিন্ন স্কুলের প্রধান শিক্ষক-শিক্ষিকাকে নিয়ে বৈঠক হয়েছে। যদিও ক্লাসে সিসিটিভি বসানোর টাকা কোথা থেকে আসবে সেই
প্রশ্ন তুলেছেন রাজ্য ‘ট্রেন্ড প্রাইমারি টিচার্স অ্যাসোসিয়েশন’-এর রাজ্য সভাপতি পিন্টু পাড়ুই। মানিকবাবু জানিয়েছেন, প্রতিটি স্কুলেরই নিজস্ব তহবিল থাকে। সেখান থেকেই সিসিটিভি বসানো হবে।