পঞ্চায়েত ভোট কখন হবে, তা নিয়ে রাজ্য নির্বাচন কমিশন এবং নবান্নের মধ্যে দড়ি টানাটানি কার্যত শুরু হয়ে গেল। কমিশন চায় জুন মাসে ভোট করাতে। তাতে সম্মত নয় রাজ্য।  তবে এ নিয়ে কোনও সিদ্ধান্তই নেয়নি নবান্ন। ফলে ভোটের নির্ঘন্ট ঠিক করতে পারছে না কমিশন। যদিও প্রস্তুতির অঙ্গ হিসাবে পঞ্চায়েতের তিনটি স্তরেই আসনগুলির সীমানা ঠিক করা (ডিলিমিটেশন) এবং সংরক্ষণের কাজ শুরু করে দিয়েছে পঞ্চায়েত দফতর। তদারকি করছে কমিশনও।

আরও পড়ুন: আরও সময় চান মুকুল

সরকারি সূত্রের খবর, সেপ্টেম্বরের গোড়ায় রাজ্য নির্বাচন কমিশন পঞ্চায়েত দফতরে চিঠি দিয়ে জানায় ২০১৮ সালে পঞ্চায়েত নির্বাচন করতে হবে। সে জন্য কমিশন জুন মাসে ভোট করাতে চায়। তার দিনক্ষণ এবং সম্মতি জানতে চেয়ে রাজ্যের কাছে জবাব চেয়েছে কমিশন। সেই চিঠির জবাব কী দেওয়া হবে তা জানতে চেয়েছে পঞ্চায়েত দফতর থেকে মুখ্যমন্ত্রীর দফতরে কমিশনের প্রস্তাবটি পাঠানো হয়েছে। রাজ্যের পঞ্চায়েত মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের কথায়, ‘‘মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সিদ্ধান্ত নিলেই আমরা কমিশনকে ভোটের মাস জানিয়ে দেব। তার পরে দিনক্ষণ নিয়ে আলোচনা শুরু হবে।’’

দফতরের খবর, ২০১৩ সালে জুলাই মাস জুড়ে রাজ্যে পঞ্চায়েত ভোট হয়েছিল। গ্রাম পঞ্চায়েত, পঞ্চায়‌েত সমিতি এবং জেলা পরিষদগুলি গঠিত হয়েছিল ২৫ অগষ্ট  পর্যন্ত। সংবিধান অনুযায়ী সমস্ত পঞ্চায়েতগুলি অগষ্ট মাস পর্যন্ত বহাল থাকবে। তার আগে নির্বাচন হয়ে গেলেও নবনির্বাচিত সদস্যরা কেউ নতুন  পঞ্চায়েত গঠন করতে পারবেন না। পঞ্চায়েত কর্তাদের একাংশ মনে করছেন, যদি নির্দিষ্ট সময়ের অনেক আগে ভোট হয়ে যায়, তা হলে একদল থাকবেন যাঁরা পরাজিত হয়েও আরও কয়েক মাস ‘ক্ষমতায়’ থেকে যাবেন। অন্যদিকে জিতেও অনেকে পঞ্চায়েতে বসতে পারবেন না। এই পরিস্থিতিতে তৃণমূলস্তরে আইন-শৃঙ্খলার সমস্যা দেখা দিতে পারে।

অনেকের মতে, সেই কারণে নবান্ন থেকে এখনও কোন মাসে পঞ্চায়েত নির্বাচন করানো হবে তা বলা হচ্ছে না। যদিও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও শীতেই পঞ্চায়েত নির্বাচন চাইছেন বলে একাংশের দাবি। সে ক্ষেত্রে ফেব্রুয়ারির মধ্যেই পঞ্চায়েত নির্বাচন করার কথা জানাতে পারে রাজ্য ।

তৃণমূল সূত্রের খবর, ডিলিমিটেশন এবং সংরক্ষণের কাজ চলছে পুরোদমে। এর পরে  খসড়া তালিকা প্রকাশ হওয়ার কথা। তার পরে সব রাজনৈতিক দলের সঙ্গে কথা বলে ভোটের দিন রাজ্য সরকার চূড়ান্ত করবে। তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্ব জেলার নেতাদের জানুয়ারির মাঝামাঝি বা ফেব্রুয়ারির শেষ দিকে পঞ্চায়েত ভোট হবে বলে ইঙ্গিতও দিতে শুরু করেছেন। বুধবার কলকাতার ভবানীপুরে তৃণমূলের রাজ্য সভাপতি সুব্রত বক্সি এবং মালদহের দলের পর্যবেক্ষক শুভেন্দু অধিকারী মালদহের পাঁচ তৃণমূল নেতাকে ডেকে বৈঠক করেন। সেই বৈঠকেই ফেব্রুয়ারির মধ্যে পঞ্চায়েত নির্বাচন করার ইঙ্গিত দিয়েছেন।