এ মাসের গোড়ায় নয়াদিল্লিতে কেন্দ্রীয় খাদ্য মন্ত্রকের আয়োজিত সম্মেলনে যোগ দিতে রাজ্যের খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ মন্ত্রী রেজ্জাক মোল্লাকে পাঠিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এ বার কেন্দ্রের উদ্যোগে গুজরাতে আয়োজিত একটি বস্ত্র শিল্প সম্মেলনে যোগ দেবে পশ্চিমবঙ্গ।

ওই সম্মেলনের জন্য নিমন্ত্রণ জানাতে মঙ্গলবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ফোন করেছিলেন কেন্দ্রীয় বস্ত্রমন্ত্রী স্মৃতি ইরানি। স্মৃতি মমতাকে অনুরোধ করেন, তিনি নিজে সম্মেলনে উপস্থিত থাকতে পারলে ভালো। নইলে অন্তত প্রতিনিধি দল যেন পাঠায় বাংলা। বস্ত্রমন্ত্রীর ওই নিমন্ত্রণে সাড়া দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। সম্মেলনে যোগ দেওয়ার প্রস্তুতি শুরু করতে মমতা এ দিনই নির্দেশ দেন শিল্পমন্ত্রী অমিত মিত্রকে। পরে শিল্প দফতর জানিয়েছে, বিশ্ব বাংলা নিগমের মাধ্যমে সরকার যে ভাবে বাংলার বালুচরী, মসলিন বা অন্য রেশম-শাড়ি এবং পাটের তৈরি সামগ্রী গোটা দুনিয়ায় বিপণন করছে, সেটাই ওই সম্মেলনে তুলে ধরা হবে।

যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামোয় এমন আদানপ্রদানে অবশ্য অভিনবত্ব নেই। এটাই স্বাভাবিক। মমতাও এ দিন সেই বার্তাই দিতে চান। এক অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, ‘‘কেন্দ্র-রাজ্য বোঝাপড়ার মাধ্যমে চলুক। কোনও দল কখনও ক্ষমতায় আসবে, কখনও চলে যাবে। পরম্পরা যেন বজায় থাকে। গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রে এক অপরকে সম্মান জানাবে, এটাই সবচেয়ে বড় কাজ।’’