আশায় আশায় থেকেও তার বাঘা মূর্তি এ বার আর দেখা গেল না। ব্যাঘ্রগর্জনের বদলে তার বিদায়ঘণ্টা শোনা যাচ্ছিল কিছু দিন ধরেই। মাঘের শেষ বেলায় বাংলা ছাড়ল শীত।

বৃহস্পতিবার আলিপুর আবহাওয়া দফতর জানিয়ে দেয়, এ বারের মতো শীতের ইনিংস শেষ। এখন পারদের উত্থানের পালা।
তবে এক ধাক্কায় নয়, ধীরে ধীরে রুদ্রমূর্তি ধরবে গ্রীষ্ম। এ দিন কলকাতায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ২০.৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে চার ডিগ্রি বেশি। বাঁকুড়া, বীরভূমের মতো পশ্চিমের জেলাতেও সর্বনিম্ন তাপমাত্রা স্বাভাবিকের থেকে বেশি ছিল।

আলিপুর আবহাওয়া দফতরের অধিকর্তা গণেশকুমার দাস বলেন, ‘‘জলীয় বাষ্প ঢোকায় আকাশ মেঘলা। তাই কয়েক দিন সর্বোচ্চ তাপমাত্রা খুব একটা বা়ড়বে না।’’

জলবায়ু বদলের চক্করে শীত ও গ্রীষ্মের মাঝখান থেকে বসন্ত কার্যত হারিয়েই গিয়েছে। বেশ কিছু বছর ধরে শীত ফুরোতে না-ফুরোতেই জাঁকিয়ে বসছে গরম। তাপমাত্রার দ্রুত হেরফেরে ছড়াচ্ছে নানান অসুখ। সর্দিজ্বর, জলবসন্ত-সহ ভাইরাসঘটিত নানা অসুখ ছড়াতে শুরু করেছে। তাই সুস্থ থাকতে বাড়তি সতর্কতার পরামর্শ দিচ্ছেন চিকিৎসকেরা।