রাজ্যে অশান্তি পাকাতে বিজেপি বাইক বাহিনী তৈরি করছে বলে অভিযোগ তুলল শাসক তৃণমূল। তাদের আরও অভিযোগ, ওই বাহিনী তৈরির উদ্দেশ্যে ভিন রাজ্য থেকে প্রচুর মোটরবাইক কলকাতার বেলেঘাটা অঞ্চলে বিজেপি-র রাজ্য সভাপতির বাড়ির কাছে জড়ো করা হয়েছে। ওই সব মোটরবাইকের কাগজপত্র ঠিক আছে কি না, তা-ও খতিয়ে দেখবে রাজ্য। ইতিমধ্যেই উত্তরপ্রদেশের নম্বরপ্লেট যুক্ত ৬১টি বাইকের তালিকা তাদের হাতে এসেছে। সেগুলি যে উত্তরপ্রদেশের নির্বাচনে ব্যবহার করা হয়েছিল, তা স্বীকার করেছেন বিজেপি-র রাজ্য নেতৃত্ব। 

তৃণমূল নেতা তথা রাজ্যের মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম শনিবার বলেন, ‘‘বিজেপি যে ভাবে গুজরাতে, মুজফ্ফরনগরে দাঙ্গা করেছে, সে ভাবেই বাংলাতেও গুন্ডাবাহিনী দিয়ে অশান্তি সৃষ্টির পরিকল্পনা করেছে। কিন্তু দিলীপ ঘোষদের ওই চক্রান্ত এ রাজ্যে সফল হবে না। কারণ, বাংলার মানুষ রুখে দাঁড়াবেন। উত্তরপ্রদেশের মুজফ্ফরনগরে যা ওরা করতে পেরেছে, তা বাংলার কৃষ্টির সঙ্গে বেমানান। সুতরাং, এখানে বাইক, তলোয়ার, অস্ত্র মিছিল— কোনওটাতেই লাভ হবে না।’’

তৃণমূলের অভিযোগের জবাবে বিজেপি-র রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘‘উত্তরপ্রদেশের নির্বাচনে ওই বাইকগুলি ব্যবহার হয়েছিল। পশ্চিমবঙ্গে আমাদের হোলটাইমার অর্থাৎ, বিস্তারকদের বুথে বুথে প্রচারের জন্য ওই বাইকগুলো দেওয়া হবে। আমরা ওগুলোর রেজিস্ট্রেশন করার চেষ্টা করছি। কিন্তু আমাদের কর্মসূচি জানে বলেই সরকার রেজিস্ট্রেশন দেওয়া নিয়ে টালবাহানা করছে।’’ দিলীপবাবুর আরও কটাক্ষ, ‘‘গুন্ডামি কারা করে সকলেই জানে।’’