শিশুমনের আনাচে-কানাচে ঘুরে বেড়াতে তাঁরা ভালবাসেন। সন্তানকে ইংরেজি মাধ্যম স্কুলে ভর্তি করা নিয়ে বাবা-মায়ের দ্বন্দ্ব বা বাবা-মা ও ঠাকুরদা-ঠাকুমার মধ্যে অভিভাবকত্বের লড়াই... প্রেক্ষাপট যা-ই হোক, শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় এবং নন্দিতা রায়ের ছবিতে শিশুশিল্পীদের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ। ‘পোস্ত’-র পর আরও এক বার ছোটদের নিয়ে গল্প বুনছেন শিবপ্রসাদ। তবে এ বার এক নয়, একঝাঁক কচি মুখের ভিড় দেখা যাবে তাঁর নতুন ছবি ‘হামি’-তে।

অতনু রায়চৌধুরী প্রযোজিত এই ছবিতে অভিনয় করছেন তনুশ্রী শঙ্কর, চূর্ণী গঙ্গোপাধ্যায়, দেবলীনা দত্ত, দেবলীনা কুমার, সুজন মুখোপাধ্যায় প্রমুখ। এ ছাড়াও পরিচালকের ভাষায় ‘ওল্ড ট্রাম্প কার্ড’ খরাজ মুখোপাধ্যায়, অপরাজিতা আঢ্যকেও গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে দেখা যাবে। থাকছেন কনীনিকা বন্দ্যোপাধ্যায়, মাসুদ আখতারও। শিবপ্রসাদের কথায়, ‘‘এই ছবিতে বাচ্চাদের জীবনের এমন কিছু সত্যি ঘটনা তুলে ধরা হবে, যা খবরের কাগজে স্থান পায় না। আমাদের ফেসবুকেও আসে না। কিন্তু ঘটনাগুলো প্রতিনিয়ত ঘটে চলেছে। তোলপাড় করা কিছু ঘটনা, ছোটদের হাসি-কান্না এই ছবির মূল বিষয়। আরও একটি বিষয় স্পষ্ট করলেন পরিচালক। ‘‘ছোটদের ক্ষেত্রে বয়সটা একটা ফ্যাক্টর। তাই অন্য ছবির কাজ তুলে রেখে এই ছবির কাজ আগে করছি। কারণ এক বছর পরে করলে ওদের সেই সারল্যটা হয়তো থাকবে না, যা এই মুহূর্তে আছে।’’

অভিরাজ, তিয়াষা, ব্রত

এই ছবির অন্যতম আকর্ষণ শিবপ্রসাদ ও গার্গীর (রায়চৌধুরী) জুটি। রামধনুর ‘লালটু-মিতালির’ জুটি দর্শকের ভালবাসা পেয়েছিল। শিবপ্রসাদের কথায়, ‘‘এই ছবি ‘রামধনু’র সিক্যুয়েল নয়। তবে লালটু-মিতালির কামব্যাক বলা যায়। চরিত্রগুলো থাকছে। তবে তাদের প্রেক্ষাপট, ব্যাকগ্রাউন্ড একেবারে আলাদা।’’

শিশুশিল্পী মানেই দর্শকের মনে আলাদা করে উত্সাহ তৈরি হওয়া। পরিচালকের কথায়, ‘‘তেমন কোনও ভাবনা নেই। এখনকার দর্শক ১২০ মিনিটের ছবির সবটুকু উপভোগ করতে চান। সেখানে যেন কোনও ফাঁক না থাকে। এই ছবিতে ছোটদের বিষয় তুলে ধরা হচ্ছে, যা একাধারে উপভোগ্য এবং বড়দেরও ভাবতে বাধ্য করবে।’’

 

ছবি: অর্পিতা প্রামাণিক