জামিন নয় শহিদুলকে

আদালতে শহিদুল আলম। ছবি- এএফপি

জামিন হল না শহিদুল আলমের। মঙ্গলবার শুনানির পরে ঢাকার মহানগর দায়রা জজ আদালত আলোকচিত্রীর জামিনের আবেদন খারিজ করে দিয়েছে। 

ঢাকায় স্কুল ছাত্রদের ‘নিরাপদ সড়ক আন্দোলন’ চলাকালীন ফেসবুক লাইভে এসে নানা উস্কানিমূলক কথা বলা, ছাত্রদের খেপিয়ে তোলার চেষ্টা করা এবং গুজব ছড়িয়ে পরিস্থিতি হিংসাত্মক করে তোলার অভিযোগে ৬ অগস্ট পুলিশ তথ্য ও যোগাযোগ আইনে শহিদুলকে গ্রেফতার করে। আন্তর্জাতিক স্তরে পরিচিত এই আলোকচিত্রী গ্রেফতার হওয়ার পরে তাঁর অনুগামীদের উদ্যোগে অমর্ত্য সেন-সহ বহু বিশিষ্ট জন শহিদুলের মুক্তি চেয়ে আবেদনে স্বাক্ষর করেন। শহিদুলের স্ত্রী রেহনুমা আহমেদের দাবি, পশ্চিম এশিয়ার একটি প্রভাবশালী টেলিভিশন চ্যানেলে সরকারের তীব্র সমালোচনা করেছিলেন বলেই মিথ্যা ও সাজানো মামলায় পুলিশ তাঁকে গ্রেফতার করেছে। ওই চ্যানেলের সাক্ষাত্কারে শহিদুল বলেছিলেন, বাংলাদেশে গণতন্ত্র নেই। শেখ হাসিনার সরকার জালিয়াতির নির্বাচনে ক্ষমতা ধরে রেখেছে। এমনকি, হাসিনাকে হিটলারের সঙ্গে তুলনা করেছিলেন এই আলোকচিত্রী। 

যদিও সরকারের তরফে বারবার বলা হয়েছে, ওই সাক্ষাত্কারের সঙ্গে শহিদুলের গ্রেফতারের সম্পর্ক নেই। ছাত্রদের আন্দোলনের সময়ে তিনি একাধিক বার ফেসবুক লাইভে এসে আন্দোলনকারীদের ওপর নির্যাতন ও তাদের প্রাণহানির গুজব ছড়িয়ে পরিস্থিতি হিংসাত্মক করে তুলতে চেয়েছেন। সে জন্যই পুলিশ তাঁকে গ্রেফতার করেছে। উদ্দেশ্যমূলক ভাবে দু’টি বিষয়কে মিলিয়ে সরকারের বিরুদ্ধে অপপ্রচার করা হচ্ছে। জামিন চেয়ে উচ্চ আদালতে যাবেন বলে জানিয়েছেন শহিদুলের আইনজীবীরা।