দুর্ভোগ কমাতে মাঝেরহাট খালের উপর ২টি রাস্তার পরিকল্পনা

ভেঙে পড়া মাঝেরহাট সেতু।

একটি নয়, দু’টি বিকল্প পথ তৈরি করতে চাইছে রাজ্য সরকার। প্রথমটি হবে ভেঙে পড়া মাঝেরহাট ব্রিজের পাশ দিয়ে। দ্বিতীয়টি হবে নিউ আলিপুর স্টেশনের কাছে খালের উপর দিয়ে। এই দু’টি রাস্তাই জুড়ে দেওয়া হবে নিউ আলিপুর অ্যাভিনিউয়ের সঙ্গে। পুজোর আগেই এই পরিকল্পনা বাস্তবের রূপ দিতে চাইছে রাজ্য সরকার।

বুধবার সকাল থেকেই মাঝেরহাট খালের উপর রাস্তা তৈরি প্রক্রিয়া শুরু হয়ে যায়। মোমিনপুরের দিকে মাঝেরহাট ব্রিজ সংলগ্ন কংক্রিটের রাস্তা সমতল করা হচ্ছে। পরিষ্কার করা হচ্ছে ঝোপঝাড়ও। বুধবার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন পুলিশ, কেএমডিএ, পুরসভা, পূর্ত দফতরের অধিকারিকেরাও। খালের উপর কী ভাবে কালভার্ট বানানো হবে? রাস্তা কতটা চওড়া করা যেতে পারে, পাইপের মাধ্যমে খালের জল পাস করানোর পর, তার উপর কালভার্ট বসিয়ে কোনও সমস্যা হবে কি না, তা খতিয়ে দেখেন আধিকারিকেরা।

বিকল্প আর একটি রাস্তার কথাও মাথা রাখা হচ্ছে। নিউ আলিপুর স্টেশনের পাশ থেকে ওই রাস্তা তৈরি করা হবে। সেখানেও কাজ শুরু হয়ে গিয়েছে। অন্য দিকে মাঝেরহাট বিপর্যয়ের কারণ খুঁজতে আইআইটি খড়্গপুরের সাহায্য নেবে কলকাতা পুলিশ। একটি থ্রি ডি ক্যামেরা কেনারও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ওই ক্যামেরার সাহায্যে কংক্রিটের ভিতরেও কাঠামোর কী অবস্থা, খতিয়ে দেখা হবে।

আরও পড়ুন: বচসার জেরে বৃদ্ধ দম্পতি ও তাঁদের ছেলেকে মারধর, সিন্ডিকেটই কি কারণ?

হঠাৎ মাঝেরহাট ব্রিজ ভেঙে পড়ায় কার্যত বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে বেহালা, ঠাকুরপুকুর-সহ দক্ষিণ ২৪ পরগনার একটা অংশ। ধর্মতলা, হাওড়া, শিয়ালদহ আসতে হিমশিম খেতে হচ্ছে বাসিন্দাদের। বিকল্প রাস্তাগুলোতে সব সময়ই যানজট লেগে রয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে হিমশিম খেতে হচ্ছে পুলিশকে।

এই পরিস্থিতি থেকে রেহাই পেতে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব খালের উপর উড়ালপুল তৈরি করতে চাইছে রাজ্য। বুধবার থেকেই জোর কদমে কাজও শুরু হয়ে গিয়েছে। মাঝেরহাট ব্রিজ লাগোয়া কংক্রিটের রাস্তা ভেঙে সমতল করা হচ্ছে। ঝোপঝাড় পরিষ্কার করে ফেলা হয়েছে। নিউ আলিপুরের দিকে রাস্তা যেখানে শেষ হয়েছে, সেখানে এখন পাঁচিল রয়েছে। সেটাও ভেঙে ফেলা হবে।

খালের উপর ব্রিজ তৈরি হয়ে গেলেই লেভেল ক্রসিংয়ের মাধ্যমে গাড়ি চলাচল করবে। রেলের তরফেও সব রকমের সহযোগিতা রয়েছে। পুজোর আগে দুর্গাপুর, টালিগঞ্জ এবং ব্রেস ব্রিজে বাড়তি চাপ কমানোই প্রধান উদ্দেশ্য। কারণ ওই ব্রিজগুলোরও সংস্কার দরকার। যে ২০টি বিপজ্জনক ব্রিজের তালিকা তৈরি হয়েছে, তার মধ্যে এই তিনটি ব্রিজও রয়েছে।

আরও পড়ুন: ‘স্কুলের দাদার মতো আমারও জ্বর হয়নি তো!’, শেষরক্ষা হল না আরুষের

মাঝেরহাট খালের ওপর বিকল্প পথের খোঁজ। দেখুন ভিডিয়ো

পুজো শেষ হয়ে গেলেই মাঝেরহাট ব্রিজের কাজও শুরু হয়ে যাবে। মাঝেরহাট ব্রিজ পুনর্নির্মাণের ক্ষেত্রে বিদেশি সংস্থার সাহায্য নেওয়া হতে পারে বলে নবান্ন সূত্রে খবর।

অন্য দিকে রেল সূত্রে জানা যাচ্ছে, লেভেল ক্রসিংয়ের মাধ্যমে গাড়ি চলাচলের জন্য রাজ্যের তরফে চিঠি দেওয়া হয়েছে। ইতিমধ্যেই অনুমোদনের জন্য রেল বোর্ডকে তা জানানোও হয়েছে। গ্রিন সিগন্যাল এলে তবেই সরকারিভাবে লেভেল ক্রসিং-এর ছাড়পত্র মিলবে। তবে অনুমতি পেতে কোনও সমস্যা হওয়ার কারণ নেই বলেই খবর।