এক মাসের মধ্যেই কাজ শুরু চাবাহারে

ফাইল চিত্র।

তেল আমদানি নিয়ে যখন কূটনৈতিক টানাপড়েন তুঙ্গে, সে সময় নিঃশব্দে ইরানের একটি প্রতিনিধি দল ভারতে এসে চাবাহার বন্দর নিয়ে বকেয়া কাজটুকু সেরে গেল। এক মাসের মধ্যেই এই বন্দর ব্যবহার করতে শুরু করতে পারবে ভারতীয় সংস্থাগুলি।

ইরানের প্রতিনিধিদলটির নেতৃত্ব দিলেন সে দেশের সড়ক এবং নগরোন্নয়নমন্ত্রী আব্বাস আখুন্দি। তিনি গত কালই বলেছিলেন, ‘‘ভারতীয় সংস্থার হাতে চাবাহার বন্দর তুলে দেওয়ার জন্য এখন আমরা প্রস্তুত। এই নিয়ে নয়াদিল্লির সঙ্গে আমাদের অন্তর্বর্তী চুক্তি রয়েছে।’’

দু’দেশের মধ্যে চাবাহার বাণিজ্য এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য প্রয়োজন ছিল ভারত এবং ইরানের ব্যাঙ্কের মধ্যে সমন্বয় চুক্তি। আখুন্দি জানিয়েছেন, সেই কাজটিও সুসম্পন্ন হয়ে গিয়েছে। তাঁর কথায়, ‘‘আমরা ইতিমধ্যেই এক ধাপ এগিয়ে গিয়েছি। আমরা ভারতে একটি ব্যাঙ্ক চ্যানেল খুলছি। দিল্লি এ ব্যাপারে সম্পূর্ণ সহযোগিতা করেছে।’’

সূত্রের খবর, একই ভাবে ভারতও ইরানে ব্যাঙ্ক চ্যানেল খুলেছে যা ইরান সেন্ট্রাল ব্যাঙ্ক অনুমোদন করেছে। বিদেশ মন্ত্রকের বক্তব্য, পাকিস্তানকে এড়িয়ে আফগানিস্তান হয়ে মধ্য এশিয়া পর্যন্ত বাণিজ্যপথ তৈরি করার প্রশ্নে ভারতের কাছে চাবাহারের গুরুত্ব অপরিসীম। স্থলপথ, সমুদ্রপথ এবং বিমানপথ মিলিয়ে তৈরি হবে এই বাণিজ্য-করিডর।