• ৩০ সেপ্টেম্বর

দীপোৎসব-সরযূ আরতির আয়োজন, প্রস্তুতিতে ঝড় নিরাপত্তায় মোড়া অযোধ্যায়

সোমবার পর্যন্ত কিছুটা ছাড় ছিল শহরের ট্রাফিকে। কিন্তু মঙ্গলবার থেকে যেন অভেদ্য দুর্গ হয়ে উঠেছে অযোধ্যা।

ঈশানদেব চট্টোপাধ্যায়

অযোধ্যা ৪, অগস্ট, ২০২০ ০৮:৪৮

শেষ আপডেট: ৪, অগস্ট, ২০২০ ১১:০৮


Anandabazar Patrika Read Latest Bengali News, Breaking News in Bangla from West Bengal's Leading Newspaper

বর্ষায় অযোধ্যার সরযূর জল যে গতিতে বইছে তার থেকেও দ্রুত এগোচ্ছে সময়। বুধবার সেই ঐতিহাসিক মুহূর্ত। রাম মন্দিরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের মতো মেগা ইভেন্ট। তার আগে শেষমুহূর্তের প্রস্তুতি চলছে অযোধ্যায়। আসছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীও। থাকবেন অনেক ভিভিআইপি। সে সব মাথায় রেখেই অযোধ্যাকে নিরাপত্তার চাদরে মুড়ে ফেলেছে প্রশাসন।

গত কয়েক দিন ধরেই নানা রঙে সেজে উঠেছে মন্দির নগরী। মন্দিরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের দিন ঘোষণার পর থেকেই অযোধ্যার রাস্তার দেওয়ালে দেওয়ালে এখন নানা রঙের সমাহার। অযোধ্যা জুড়ে গেরুয়া রঙের পতাকা। তৈরি হয়েছে তোরণ। প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানিয়ে রাস্তায় মোড়ে মোড়ে ঝোলানো হয়েছে ব্যানার। মূল অনুষ্ঠানের পাশাপাশি চলছে অন্যান্য প্রস্তুতিও। অযোধ্যার সঙ্গে মিলে যেতে চলেছে বারাণসী। উত্তরপ্রদেশেরই আর এক মন্দির শহরের মতো দীপোৎসবের আয়োজন চলছে অযোধ্যায়। সরযূর তীরে রাম কি পৈড়ী ঘাটে এখন শেষ মুহূর্তের ব্যস্ততা। বারণসীর মতো সরযূ আরতির আয়োজনও করা হয়েছে এখানেও।

সোমবার পর্যন্ত কিছুটা ছাড় ছিল শহরের ট্রাফিকে। কিন্তু মঙ্গলবার থেকে যেন অভেদ্য দুর্গ হয়ে উঠেছে অযোধ্যা। মূল অযোধ্যার সব মোড়ে নাকাবন্দি চলছে। জারি রয়েছে চেকিংও। বুধবার সাকেত কলোনির হেলিপ্যাডে নামবেন প্রধানমন্ত্রী। সেখান থেকে হনুমানগঢ়ী পৌঁছবে নরেন্দ্র মোদীর কনভয়। এ দিন ওই রাস্তায় কনভয় ঢুকিয়ে বার বার মক ড্রিল করে প্রশাসন।

আরও পড়ুন: রামের নগরী যেন দুর্গের ঘেরাটোপে থাকা ‘পীতাম্বরী’ নববধূ

Advertising
Advertising
আরও গ্যালারি
আরও খবর
  • ট্রাক্টর পোড়ানো চাষিদের অপমান, আক্রমণ মোদীর

  • ‘পিছনে তাকিয়ে আর লাভ কী!’

  • মহাকাব্য নয়, এখন রাম মানে রাজনীতি আর অন্ধ ভক্তি

  • ট্রাক্টর পুড়িয়ে চাষিদের অপমান করছেন,...

সবাই যা পড়ছেন
আরও পড়ুন