সিনেমা হলের মেঝে খুঁড়তেই বেরিয়ে এল রাশি রাশি স্বর্ণমুদ্রা!

একটা বন্ধ হয়ে যাওয়া সিনেমা হল। তা ভাঙতে গিয়ে যেন কোনও সিনেমাই দেখে ফেললেন শ্রমিকরা। সিনেমা হলের মেঝে খুঁড়তেই বেরিয়ে এল বহু পুরনো মাটি লেগে থাকা একটা পাত্র। পাত্রের মুখে ছোট একটা ঢাকনা।
পাত্রের ঢাকনা সরাতেই হতবাক শ্রমিকরা। ভিতরে কী যেন চকচক করছে! দেখা গেল ভিতরে থরেথরে সাজানো রয়েছে গোলাকার সোনালী বর্ণের প্রচুর কয়েন। আসল না নকল? এগুলো এখানে এল কী ভাবে? এমন নানা প্রশ্ন উঁকি মারতে থাকে তাঁদের মনে। ডাক পড়ে প্রত্নতত্ত্ববিদের।
সব কিছু খতিয়ে দেখে রীতিমতো হতচকিয়ে গেলেন প্রত্নতত্ত্ববিদেরাও। নকল তো নয়ই, বরং বহু পুরনো এই কয়েনগুলো। কয়েনগুলো রোমান সাম্রাজ্যের এবং বহু মূল্যবানও। সব মিলিয়ে কত মূল্য হবে হিসেব কষে তার সঠিক দাম এখনও বার করতে পারেননি প্রত্নতত্ত্ববিদেরা। তবে এখনও পর্যন্ত যা অনুমান, এর আনুমানিক মূল্য কোটি কোটি টাকা।
ঘটনাস্থল রোমের নোভাম কুমাম শহর। ১৮৭০ সালে একটি থিয়েটারের উদ্বোধন হয়েছিল এই শহরে। পরে সেটিই সিনেমা হল হয়ে যায়। পরবর্তীকালে ১৯৯৭ সালে সিনেমা হলটি বন্ধ হয়ে যায়।
লাক্সারি রেসিডেন্সিয়াল করার পরিকল্পনা রয়েছে এই বন্ধ হয়ে যাওয়া সিনেমা হলের জায়গায়। সিনেমা হল ভেঙে ফেলে বহুতল বানানোর কাজ চলছে। আর সেই কাজ করতে গিয়েই উদ্ধার হয়েছে এই পুরনো কয়েনগুলো।
ইতালি সংস্কৃতি মন্ত্রক ওই জায়গায় বহুতল বানানোর কাজ বন্ধের নির্দেশ দিয়েছে। প্রত্নতত্ত্ববিদেরা ওই জায়গায় খনন করে আরও ইতিহাসের সন্ধান করবেন বলে জানিয়েছেন রোমের সংস্কৃতিমন্ত্রী অ্যালবার্টো বনিসলি।