ক্যাপ্টেন কোহালির যে বিতর্কিত সিদ্ধান্তগুলি প্রবল সমালোচিত হয়েছে

অধিনায়ক হিসাবে বিরাট কোহালির রেকর্ড অনেকের কাছেই হিংসে করার মতো। তবে ক্যাপ্টেন হিসাবে এমন কতগুলি সিদ্ধান্ত নিয়েছেন কোহালি, যা দেখে বহু বিশেষজ্ঞের সমালোচনা মুখে পড়েছেন। সেগুলি কী কী, তা জেনে নিন। ছবি: পিটিআই।
সাল ২০১৪। অস্ট্রেলিয়ায় অ্যাডিলেড টেস্ট। চোটের জন্য এম এস ধোনির বদলে টিম ইন্ডিয়ার দায়িত্বে কোহালি। রবিচন্দ্রন অশ্বিন টিমে থাকলেও প্রথম একাদশে জায়গা হয়েছিল লেগস্পিনার কর্ণ শর্মার। যদিও কোহালির ওই ফাটকা কাজে আসেনি। অভিষেক ম্যাচে ২৩৮ রানে ৪ উইকেট পেয়েছিলেন কর্ণ। সে ম্যাচের পর এখনও টেস্ট দলে দেখা যায়নি কর্ণকে। ছবি: সংগৃহীত।
চলতি বছরে দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে টেস্ট সিরিজের প্রথম ম্যাচে ভুবনেশ্বর কুমারের বোলিংয়ে ধরাশায়ী হয়েছিলেন প্রোটিয়ারা। কেপ টাউনে ১২০ রান দিয়ে ৭ উইকেট নেন ভুবি। ব্যাট হাতেও ২৫ রান করেন। কিন্তু, তার পরের ম্যাচে সেঞ্চুরিয়নে তাঁকে দল থেকে বাদ দিয়ে ইশান্ত শর্মাকে নেন বিরাট কোহালি। ছবি: রয়টার্স।
বিদেশে অজিঙ্ক রাহানের অসাধারণ রেকর্ড থাকলেও দক্ষিণ আফ্রিকার ওই সিরিজের প্রথমে তাঁকে রিজ়ার্ভে রেখেছিলেন বিরাট কোহালি। রাহানের বদলে দলে রোহিত শর্মাকে নিলেও পুরোপুরি ব্যর্থ হন তিনি। শেষ টেষ্টে রোহিতের বদলে রাহানেকে নিতে বাধ্য হন কোহালি। জোহানেসবার্গের সে ম্যাচেদলের জয়ে বড় ভূমিকা নেন তিনি।
চেতেশ্বর পূজারাকে নিয়েও যেন ছিনিমিনি খেলছেন বিরাট কোহালি। চলতি ইংল্যান্ড সিরিজে এজ়বাস্টন ম্যাচে প্রথম একাদশে তাঁর জায়গায় আসেন লোকেশ রাহুল। রাহুলের ব্যাটিং ব্যর্থতার পর নটিংহ্যাম আর সাউদাম্পটনে খেলানো হয় পূজারাকে। সাউদাম্পটনে সেঞ্চুরি আসে পূজারার ব্যাট থেকে। ছবি: এএফপি।
চলতি ইংল্যান্ড সিরিজের ওভাল টেস্টেও করুণ নায়ারের বদলে খেলানো হচ্ছে হনুমা বিহারীকে। বিরাট কোহালির এই সিদ্ধান্তে ক্ষুব্ধ সুনীল গাওস্কর। তিনি বলেন, “টিম ম্যানেজমেন্টকে করুণ জিজ্ঞাসা করতেই পারেন, আমিকী দোষ করেছি? আমাকে দলে নেওয়া হল না কেন? দলে এক জন অতিরিক্ত ব্যাটসম্যান নিলে প্রথম টেস্টেই তা করা উচিত ছিল।” ছবি: এএফপি।