আন্দামান-নিকোবর ছাড়াও ঘুরে আসতে পারেন ভারতের এই অসাধারণ দ্বীপগুলোতে

দিভার দ্বীপ, গোয়া: এখনও পতুর্গীজ সাম্রাজ্যের গন্ধ লেগে আছে এই দ্বীপের গায়ে। ছোট্ট সমুদ্র সৈকত, তার গা ঘেঁষে সরু রাস্তা, নির্জনতা আর সৌন্দর্য মিলেমিশে রয়েছে এই দ্বীপের সঙ্গে। পুরনো গোয়া থেকে ছোট্ট ট্রিপে ঘুরে আসা যায় দিভার। পাহাড়ের উপরের পুরনো গির্জাটি দেখতে ভুলবেন না।
সেন্ট মেরি’জ দ্বীপ, কর্নাটক: অনেকে একে ‘কোকোনাট আইল্যান্ড’ও বলে। কর্নাটকের মালপে সৈকতে রয়েছে এই দ্বীপ। অনেকেই ভাবেন ভাস্কো-দা-গামা কেরলে যাওয়ার সময় এই দ্বীপে এসেছিলেন। আগ্নেয় শিলার ষড়ভূজ পাথরের ছড়াছড়ি এই দ্বীপে। চুপ করে বসে সমুদ্রের জলে সূর্যের নিভে যাওয়া দেখুন, এই দ্বীপের প্রেমে পড়ে যাবেন।
মুনরো দ্বীপ, কেরল: অস্তমুদি লেক এবং কালাদা নদীর উপরে কেরলের গোপন ঐশ্বর্য— মুনরো। কেরলে বেড়াতে গেলে ছবির মতো সুন্দর এই দ্বীপ মিস করা ঠিক হবে না।
উমানন্দ দ্বীপ, অসম: পৃথিবীর ক্ষুদ্রতম নদী দ্বীপ এটি। ব্রহ্মপুত্রের মাঝে সবুজ মাথাটুকু তুলে নিজের উপস্থিতি জানান দেয় উমানন্দ। প্রচুর ময়ূর দেখতে পাবেন এখানে গেলে। ঘন জঙ্গলের মঝে রয়েছে ছোট্ট একটি মন্দিরও।
ইহা গ্র্যান্ড, গোয়া: গোয়ায় এমন ছোট বড় দ্বীপের সংখ্যা নেহাত কম নয়। তবু নিজ রূপে পর্যটকদের মনে জায়গা করেছে যে গুটিকয়েক, তার মধ্যে ইহা গ্র্যান্ড অন্যতম। ইহা গোয়ার সবচেয়ে বড় দ্বীপ। কিন্তু অনেকেই নাম জানেন না ইহার। একদিকে নরম সবুজ, অন্যদিকে পাথুরে কাঠিন্য, তার সঙ্গে মানানসই সবজে-নীল আরব সাগর। মনোরম প্রকৃতির মধ্যে ইচ্ছে হলে ট্রাই করুন স্কুবা ডাইভ। ইহাকে ছাড়তে মন কেমন করবে।
নেত্রানি দ্বীপ, কর্নাটক: মুরুদেশ্বর সৈকত ছাড়িয়ে একটু এগিয়ে গেলেই যেন স্বর্গরাজ্য, নেত্রানি। স্বচ্ছ তকতকে জল, নীচে তাকালেই জলের তলার অজানা জগৎ যেন হাতছানি দেয়। ঘণ্টার পর ঘণ্টা কাটিয়ে দেওয়া যায়, রঙিন মাছেদের খেলা দেখে।
বালিয়ামারাম্বা দ্বীপ, কেরল: কাসারাগড ডেলায় রয়েছে এই দ্বীপ। নারকেল আর পাম গাছে ঘেরা এই দ্বীপে কেরলের সনাতন সৌন্দর্য হাতছানি দিয়ে ডাকে। এখানেই দেখতে পাবেন চার নদীর মোহনাও। নিজের মতো করে চুপটি করে সময় কাটানোর জন্য সেরা বালিয়ামারাম্বা।