ধাপে ধাপে রসমালাই রেসিপি

রসমালাই এমনই সুস্বাদু এক মিষ্টি যা সারা ভারতে সমান সমাদৃত। জমিয়ে খাওয়ার পর শেষপাতে ঠান্ডা রসমালাই রসনার তৃপ্তি ঘটাবেই। শিখে নিন রসমালাই রেসিপি। 
কী কী লাগবে: দেড় লিটার দুধ ছানার জন্য, ১ লিটার দুধ রাবড়ির জন্য, ২ চা চামচ কর্নফ্লাওয়ার, আধ কাপ চিনি, সিকি কাপ কনডেন্সড মিল্ক, ৩টে ছোট এলাচ গুঁড়ো, ১০-১২টা কেশর স্ট্র্যান্ড, ১ চিমটি হলুদ রং, ২টো লেবুর রস, ১ মুঠো পেস্তা কুচি।
দেড় লিটার দুধ একটা বড় সসপ্যানে মাঝারি আঁচে জ্বাল দিতে থাকুন। ফুটতে শুরু করলে ২টো লেবুর রস দিয়ে দিন। দুধ কেটে গেলে পাতলা কাপড়ে দুধ ছেঁকে নিন। তারপর পাতলা কাপড়ের মুখ শক্ত করে বেঁধে অন্তত ১ ঘণ্টা ঝুলিয়ে রাখুন যাতে সম্পূর্ণ জল ঝরে যায়। ছানা একটা কাচের বাটিতে নিয়ে কর্নফ্লাওয়ার মিশিয়ে ভাল করে মাখতে থাকুন।
মাখা ছানা ৫-৭ মিনিট রেখে দিন। তারপর হাতের চাপে গোল গোল ছানার বল তৈরি করে নিন।
১টা সসপ্যানে জল গরম করুন। এলাচ দিয়ে জল ফুটতে দিন। এর মধ্যে ছানার বল দিয়ে ফোটাতে থাকুন যতক্ষণ না বলগুলো ফুলে দ্বিগুণ আকারের হচ্ছে ও ভাসতে শুরু করছে। জল থেকে তুলে রসগোল্লা চিপে জল বের করে রাখুন।
একটা বাটিতে ১ কাপ দুধ, ২ টেবল চামচ চিনি, এক চিমটি হলদ রং দিয়ে রসগোল্লা দিয়ে রাখুন। ভিজতে দিন যতক্ষণ রাবড়ি তৈরি করছেন।
একটা সসপ্যানে একদম ঢিমে আঁচে ১ লিটার দুধ জ্বাল দিতে থাকুন। এর মধ্যে ছোট এলাচ গুঁড়ো ও কেশর দিয়ে প্রতি ২ মিনিট অন্তর নাড়তে থাকুন যাতে পাত্রের তলায় লেগে না যায়। ১৫-২০ মিনিটের মধ্যে দুধ ঘন হয়ে অর্ধেক হয়ে যাবে।
এ বার চিনি, কনডেন্সড মিল্ক, পেস্তা কুচি ও হলুদ রং মিশিয়ে আরও ২ মিনিট হালকা আঁচে রাখুন যতক্ষণ না চিনি সম্পূর্ণ গলে যাচ্ছে।
পরিষ্কার বাটিতে রাবড়ি ঢেলে রসগোল্লা দিয়ে দিন। চাপা দিয়ে ঠান্ডা করে ঘরের তাপমাত্রায় নিয়ে আসুন।
ঠান্ডা হয়ে যাওয়ার পর কাচের বাটিতে ঢেলে সারা রাত রেফ্রিজরেটরে রাখুন। যাতে রসগোল্লায় ভাল করে রাবড়ি ঢুকে যায়। চিলড রসমালাই পেস্তা কুচি ও কেশর ছড়িয়ে পরিবেশন করুন।