কারেনকে সিরিজ সেরা বাছলেন কোহালিরা

সৌজন্য: রুটকে অভিনন্দন বিরাটের। মঙ্গলবার। রয়টার্স

টেস্ট ও সিরিজ হারের হতাশা অনেকটাই যেন ভুলিয়ে দিল দুই তরুণের সেঞ্চুরি। কেএল রাহুলের ১৪৯ ও ঋষভ পন্থের ১১৪। তাই ১-৪ সিরিজ হেরেও অতটা মনমরা নন ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহালি। ভারতীয় দলের সিরিজসেরার পুরস্কার নেওয়ার পরে বললেন, ‘‘ফলাফলে তো সব বোঝা যায় না। তবে শেষ দিনের এই লড়াই বুঝিয়ে দিল, আমাদের দলের ছেলেদের চারিত্রিক দৃঢ়তা কেমন।’’

এই সিরিজে অভিনব পদ্ধতিতে দু’জন ক্রিকেটারকে সেরা বেছে নেওয়া হল। ভারতের কোচ-অধিনায়ক বেছে নিলেন ইংল্যান্ডের সেরা ক্রিকেটারকে। আর ইংল্যান্ডের কোচ-অধিনায়ক বাছলেন ভারতের সেরা ক্রিকেটারকে। স্বাভাবিক ভাবেই ভারতের সেই ক্রিকেটারের নাম বিরাট কোহালি। কিন্তু বিরাটরা আবার অ্যালেস্টেয়ার কুক বা জিমি অ্যান্ডারসন নন, ইংল্যান্ডের সেরা ক্রিকেটার হিসেবে বেছে নিলেন স্যাম কারেনকে। যা নিয়ে কোহালি বলেছেন, ‘‘দুটো টেস্টেই ইংল্যান্ডের জয়ের পিছনে অবদান ছিল কারেনের। সদ্য টেস্ট খেলতে আসা একজন তরুণ ক্রিকেটারের এ রকম চারিত্রিক দৃঢ়তা আমাদের মুগ্ধ করেছে।’’     

দ্বিতীয় ইনিংসে ৪৬৪ রানের লক্ষ্য নিয়ে ব্যাট করতে নেমে ভারতের দু’রানে তিন উইকেট পড়ে যায়। এই অবস্থা থেকে দলের হাল ধরেন রাহুল ও অজিঙ্ক রাহানে। তাঁদের জুটির ১১৮ রান ও দুই সেঞ্চুরির মালিকের ২০৪ রানের পার্টনারশিপ ভারতকে লড়াইয়ে রাখলেও শেষ রক্ষা হয়নি। 

এই লড়াই নিয়ে রাহুল বলেন, ‘‘সেঞ্চুরি তো সেঞ্চুরিই। যদিও দেরিতে এল। পরিকল্পনাটা ছিল, যতক্ষণ ব্যাট করে যাব, তত ম্যাচ বাঁচানোর দিকে এগিয়ে যেতে পারব। অনেক এগিয়ে গিয়েছিলাম। কিন্তু শেষ পর্যন্ত পারলাম না বলেই 

খারাপ লাগছে।’’ কোহালি অবশ্য গর্বিত তাঁর ছেলেদের এই লড়াইয়ের জন্য। বলেন, ‘‘মাঠে নেমে যত পারো খেলো, এটাই ছিল আমাদের মূল ভাবনা। আমাদের দলে চারিত্রিক দৃঢ়তা আছে। আরও অভিজ্ঞতার প্রয়োজন। ইংল্যান্ড পেশাদার দল। আর খেলাগুলো ঘুরেছে দু-তিন ওভারের মধ্যে। এটা আমাদের বোঝা দরকার।’’ ঋষভেরও প্রশংসা করে কোহালি বলেন, ‘‘ও খুব ইতিবাচক মানসিকতার ছেলে। মানসিক ভাবে শক্তিশালী। সেটা ও আজ প্রমাণ করে দিল।’’ 

উইকেটকিপার হিসেবে তেমন নজর কাড়তে না পারলেও ব্যাটিংয়ে এদিন ক্রিকেট বিশেষজ্ঞদের প্রশংসা কুড়িয়েছেন দিল্লির তরুণ। সচিন তেন্ডুলকর, বীরেন্দ্র সহবাগরা মনে করছেন, এক ভারতীয় তারকার জন্ম দেখল ওভাল।