ভাঙচুর, অবরোধ, তুলনায় কম গাড়ি, বিক্ষিপ্ত গোলমালেও মোটের উপর স্বাভাবিক জনজীবন

কোথাও অবরোধ করা হল ট্রেন, কোথাও পোড়ানো হল মোদীর কুশপুতুল।

কংগ্রেসের বন্‌ধ এবং বামেদের হরতাল, সোমবার সকাল থেকেই এই জোড়া ফলার কিছুটা প্রভাব পড়েছে রাজ্যের বেশ কিছু জায়গায়। পেট্রোপণ্যের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদেই কেন্দ্রীয় সরকার বিরোধী ওই কর্মসূচিতে রাজ্যজুড়ে বিক্ষিপ্ত গোলমালের ছবি ধরা পড়ল। ওভারহেড তারে কলাপাতা ফেলে ট্রেন দাঁড় করিয়ে দেওয়া, লাইনের উপর শুয়ে পড়ে রেল অবরোধের মতো ঘটনা ঘটল রাজ্যের বেশ কয়েকটি জায়গায়। এছাড়া হাওড়ার দাশনগর ও পঞ্চাননতলা, পূর্ব মেদিনীপুরের মেচেদা, কলকতারা হাজরা, মানিকতলায় বন্‌ধের সমর্থনে বেশ কিছুক্ষণ পথ আটকে বিক্ষোভ দেখান বাম বা কংগ্রেস সমর্থকেরা। তবে কোনও ক্ষেত্রেই গোলমাল খুবল একটা বড় চেহারা নেয়নি।

এ দিন সকালে হাওড়ায় অল্পবিস্তর ঝামেলার খবর পাওয়া গিয়েছে। দাসপুরে হাওড়া-আমতা রাস্তা অবরোধ করেন বাম সমর্থকেরা। পুলিশ অবরোধ তুলতে গেলে তাদের সঙ্গে বন‌্ধ সমর্থকদের ধস্তাধস্তি হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে র‌্যাফ নামাতে হয় রাস্তায়। যদিও ওই অবরোধ খুব বেশিক্ষণ ছিল না।

এর মধ্যেই যাদবপুর রেল স্টেশনে শিয়ালদহগামী ট্রেন অবরোধ করা হয়। যাত্রীদের বিক্ষোভের মুখে পড়ে অবরোধকারীরা পিছু হঠেন।

মুর্শিদাবাদ এবং বর্ধমানের যে ছবি ধরা পড়েছে, তাতে দেখা যাচ্ছে বেশিরভাগ দোকানই বন্ধ। রাস্তা শুনশান। এ ছাড়া অন্য জেলায় বন‌্‌ধের এখনও পর্যন্ত তেমন কোনও প্রভাব নেই।

আরও পড়ুন: লাইভ: দেশজোড়া হরতাল ঘিরে আজ বিজেপি বনাম বিরোধী দ্বৈরথ

পেট্রোপণ্যের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে সোমবার রাজ্যে পথে নামে তৃণমূল, কংগ্রেস এবং বাম দল। তবে বন‌্‌ধে সমর্থন করছে না তৃণমূল। যান চলাচল স্বাভাবিক রাখতে রাজ্য সরকার নির্দেশ দিয়েছে। সব মিলিয়ে শুধুমাত্র কলকাতায় ৪ হাজার পুলিশ রাস্তায় থাকছে। অতিরিক্ত ৮০০টি সরকারি বাস নামানো হয়েছে রাস্তায়।

কোথায় কেমন প্রভাব পড়েছে বন‌্ধের:

• বেলা দেড়টা। হাজরা থেকে ধর্মতলামুখী কংগ্রেসের সবথেকে বড় মিছিল থিয়েটার রোডে আটকায় পুলিশ। আন্দোলনকারীরা এগোতে চাইলে তাঁদের উপর পুলিশ লাঠিচার্জ করে বলে অভিযোগ। গ্রেফতার করা হয় কয়েকজন আন্দোলনকারীদের।

দেখুন ভিডিয়ো:

 

• বন্‌ধের বেশ প্রভাব পড়েছে মুর্শিদাবাদের বহরমপুরে। বেলা ১১টা পর্যন্ত রাস্তাঘাট শুনশান। কোনও দোকান খোলেনি।

• বর্ধমানের ছবিটাও একই।

• সকাল সাড়ে ৯টা। ডানকুনিতে রেল লাইনের উপর শুয়ে পড়েন এক বাম সমর্থক। তাঁকে ঘিরে রেল লাইনের উপর আরও বাম সমর্থকেরা দাঁড়িয়ে পড়েন। যার ফলে একটি ডানকুনি লোকাল দাঁড়িয়ে পড়েছে।

লাইনের উপর শুয়ে পড়ে রেল অবরোধের চেষ্টা বাম সমর্থকদের। ডানকুনিতে।

• সকাল ৯টা। যাদবপুর ৮বি বাস স্ট্যান্ডে বামেরা মিছিল বার করে পেট্রোপণ্যের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে। সেখানে সিপিএম নেতা সুজন চক্রবর্তী বলেন, ‘‘সারা দেশের মানুষ বন‌্ধকে সমর্থন করেছেন। শুধুমাত্র এ রাজ্যে ছবিটা অন্য। কারণ এ রাজ্যের সরকার বিজেপিকে সমর্থন করছে।’’

দেখুন ভিডিয়ো:

• সকাল ৯টা থেকে রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় কংগ্রেসও রাস্তায় নেমে মিছিল-অবরোধ করতে শুরু করেছে। হাওড়ার পঞ্চাননতলায় বাস আটকানোর চেষ্টা চালান কংগ্রেস সমর্থকেরা। অবরোধ সরাতে গেলে পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তি হয় কংগ্রেস সংর্থকদের। ৪ কংগ্রেস সমর্থককে আটক করেছে পুলিশ।

 

 

• পূর্ব মেদিনীপুরের মেচেদায় এসইউসি কর্মীদের বাস আটকানোর চেষ্টা। অবরোধ তুলে দেয় পুলিশ।

• সকাল পৌনে ৯টা। ফের শিয়ালদহ দক্ষিণ শাখার লক্ষ্মীকান্তপুর লাইনে ট্রেন চলাচল ব্যাহত। ওভারহেড তারে কলাপাতা ফেলে দেওয়া হয়। শ্রীরামপুরেও ট্রেন অবরোধ বামেদের। ব্যান্ডেল লোকাল আটকে দেওয়া হয়েছে। শিয়ালদহ দক্ষিণ শাখার সুভাষগ্রাম স্টেশনে রেল অবরোধ করে কংগ্রেস। কিছুক্ষণ পরেসেই অবরোধ উঠে যায়।

• সকাল সাড়ে ৮টা। উত্তপ্ত হাওড়ার দাশনগর। রাস্তা অবরোধ করে বামেরা। অবরোধ ওঠাতে গেলে অবরোধকারীদের সঙ্গে ধস্তাধস্তি হয় পুলিশের। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে র‌্যাফ নামাতে হয়। এলাকায় বিশাল পুলিশবাহিনী মোতায়েন রয়েছে।

• হাওড়ার শানপুরে হাওড়া-আমতা রোড অবরোধ বামেদের। পুলিশ গিয়ে অবরোধ তোলে।

• যাদবপুরে আটকানো হল শিয়ালদহগামী ক্যানিং লোকাল। ট্রেন অবরোধে ক্ষোভে ফেটে পড়েন যাত্রীরা। পরে যাত্রীদের বিক্ষোভে পিছু হটেন অবরোধকারীরা।ট্যাক্সিতে বেশি ভাড়া চাওয়ার অভিযোগ শিয়ালদহে।

কেমন চলছে বন‌্ধ? দেখে নিন

• সকাল ৮টা। দুর্গাপুরের ওয়ারিয়া স্টেশনের কাছে অগ্নিবীণা এক্সপ্রেসকে আটকানোর চেষ্টা বামেদের। অবরোধকারীদের সরিয়ে দেয় রেল পুলিশ।

• যাত্রীদের যাতে গন্তব্যে পৌঁছতে দেরি না হয়, তার জন্য অতিরিক্ত ৪৫টি জলযানের ব্যবস্থাও থাকছে। থাকছে অন্য দিনের তুলনায় অতিরিক্ত ৮০০টি সরকারি বাস।

• রাস্তায় রয়েছে প্রচুর বাস, ট্যাক্সি, অ্যাপ ক্যাব। কলকাতা শহর জুড়ে রয়েছে অতিরিক্ত ১৫০০ পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

আলিপুরদুয়ারে বন‌্ধের ছবি।

• সকাল সাড়ে ৭টা। কলকাতা জুড়ে প্রচুর পুলিশি প্রহরা রাস্তায়। বেহালা চৌরাস্তায় বেশিরভাগ দোকানই বন্ধ।

• বেহালায় সমস্ত সরকারি বাস চললেও বেসরকারি বাসের সংখ্যা খুবই কম।

• ব্যারাকপুর শিল্পাঞ্চলে বন‌্ধের কোনও প্রভাব এখনও নেই।

আজ ২২ পয়সা বেড়েছে দাম

• হাওড়া ডিভিশনে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক। তবে অন্যান্য দিনের তুলনায় ট্রেনে যাত্রীর সংখ্যা অনেকটাই কম।

• সকাল ৭টা। শিয়ালদহের অন্যান্য ডিভিশনে এখনও পর্যন্ত ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক থাকলেও, শিয়ালদহ দক্ষিণ শাখার বারুইপুর এবং লক্ষ্মীকান্তপুর লোকালে ভোরে ওভারহেড তারে কলাপাতা ফেলে দেওয়া হয়। এর ফলে ৫টি আপ এবং দু’টি ডাউন ট্রেন চলাচল বিপর্যস্ত হয়।

• সকাল সাড়ে ৬টা। পেট্রোপণ্যের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে কোচবিচারে তৃণমূলের শ্রমিক ইউনিয়নের মিছিল।

—নিজস্ব চিত্র।

(পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে বাংলায় খবর জানতে পড়ুন আমাদের রাজ্য বিভাগ।)