‘আমি ভাল বক্তা’

ঋত্বিক

প্র: সিটি অব লন্ডন কলেজের গ্র্যাজুয়েট সোজা ইন্ডিয়ান টেলিভিশনে। রহস্যটা কী?

উ: অভিনয় ভালই লাগত। ১৬-১৭ বয়স তখন, বড় হয়ে কী করব ভাবছিলাম। ঠিক করি অভিনেতাই হব। তাই মুম্বই চলে এলাম।

প্র: আপনাকে ধারাবাহিকে কম, রিয়্যালিটি শোয়ে বেশি দেখা যায়।

উ: কারণ এই ধরনের কাজ করতে আমার ভাল লাগে। সিরিয়ালে অভিনয় আগেও করেছি। পরেও করব। তবে রিয়্যালিটি শোয়ে আমি নিজেকে কানেক্ট করতে পারি। যেমন ‘ইন্ডিয়াজ় গট ট্যালেন্ট’।

প্র: সফল হোস্ট হওয়ার মন্ত্র কী?

উ: জাস্ট বি ইয়োরসেল্ফ। মঞ্চে উঠে যা যা করতে হয়, সেটা ভালবাসতে হবে। নিজেকে আটকে না রেখে এগিয়ে গেলে সফল হবেই।

প্র: আপনার কি মনে হয় যে, আপনি ভাল কথা বলেন?

উ: হ্যাঁ, আমি ভাল বক্তা। কথা বলতে ভীষণ ভালবাসি। আর আমার নিজের এই ব্যাপারটাই সবচেয়ে ভাল লাগে।

প্র: আর কোনটা ভাল লাগে না?

উ: একটু অলস আমি। সত্যি কথা বলতে, আমার যে ব্যাপার পছন্দ নয়, সেটা নিয়ে আমি ঘাঁটি না।

প্র: ‘টেডএক্স টক’-এর অভিজ্ঞতা কেমন ছিল?

উ: এটা আমার নিজের সফরের গল্প। কী ভাবে আমি মুম্বইয়ে এলাম, এখানে পৌঁছলাম। নিজের উপরে বিশ্বাস রেখে এগোনো জরুরি। কারণ আমিই পারি আমাকে গড়তে, আমিই পারি ভাঙতে। ফলে মনে করি, ‘টেডএক্স টক’-এ আমার বলা কথাগুলো অনেকে বুঝতে পারবেন, নিজের সঙ্গে মেলাতে পারবেন।

প্র: ‘গলতি সে মিস-টেক’-এর পরে ‘ফ্যামিলি’ করছেন। ওয়েব সিরিজ়ের ফলে বিনোদনের ভাষা কি বদলাচ্ছে?

উ: শুধু বিষয়ই নয়। আমরা এখন এমন পর্যায়ে দাঁড়িয়ে, যেখান থেকে অন্য দিকে এগোব। সকলের মধ্যেই ‘আর নতুন কী’ প্রশ্নটা চলতে থাকে। সেই জবাবের দিকেই এগোচ্ছি।

প্র: আপনি নাকি অনেক ধরনের ইন্সট্রুমেন্ট বাজাতে পারেন?

উ: শখ বলতে পারেন। গিটার, কী-বোর্ড, হ্যাং ড্রাম, ফ্লুট, মাউথ অর্গ্যান... যখন কেউ কিছু ভালবাসে, তখন আর আলাদা করে সময় বার করার দরকার হয় না। 

প্র: আপনি আর আশা (নেগি) এ বছরই বিয়ে করছেন?

উ: আরে... যখন সময় আসবে, তখনই বলব না হয়।