আমিও ওঁর রান্নার ভক্ত

‘মেঘে ঢাকা তারা’য়

সুপ্রিয়া দেবীর কেরিয়ারের মাইলস্টোন ‘মেঘে ঢাকা তারা’। সেই ছবিতে ঋত্বিক ঘটকের অন্যতম সহকারী ছিলেন সৌমেন্দু রায়। পরবর্তী সময়ে তিনি সিনেমাটোগ্রাফার হিসেবে খ্যাতি পেয়েছেন। সেই ছবির শুটিংয়ের স্মৃতিচারণ করলেন ৮৪ বছরের সৌমেন্দু। ‘‘এই ছবিতে কাজের সুবাদেই প্রথম বার সুপ্রিয়াদিকে কাছ থেকে দেখেছিলাম। ভীষণ ভদ্র, বিনয়ী এবং মাটির মানুষ ছিলেন উনি। আমরা সাধারণত ওঁর থেকে দূরত্ব রেখেই চলতাম। নায়িকা বলে কথা! কিন্তু নিজেই স্বতঃস্ফূর্ত ভাবে মিশতেন। সকলকেই ‘তুই’ বলে ডাকতেন। কে বলবে, খুব একটা বেশি দিনের আলাপ ছিল না ওঁর সঙ্গে। তবে সব থেকে বড় পাওয়া— ‘মেঘে ঢাকা তারা’র ওই বিখ্যাত সংলাপ ‘দাদা, আমি বাঁচতে চাই’ কাছ থেকে দেখা। শটের আগে ঋত্বিকদা সিনটা বুঝিয়ে ওঁকে নিজের মতো অভিনয় করতে বলেছিলেন। এক শটেই বাজিমাত করেছিলেন সুপ্রিয়াদি। তবে রেগে গেলে ঋত্বিকদা গালাগালি করতেন। সুপ্রিয়াদিও ঋত্বিকদার বাক্যবাণের মুখে পড়েছেন। কিন্তু তাঁকে মুষড়ে পড়তে দেখিনি। আর একটা স্মরণীয় বিষয় হল সুপ্রিয়াদির হাতের রান্না। ঋত্বিকদাও খেতে ভীষণ ভালবাসতেন। মাঝে মাঝে বলতেন, ‘আমার জন্য রান্না করে আনবি, বেণু।’ আমরাও ওঁর রান্না চেখে দেখেছি। ওঁর তৈরি মাছ-মাংস তো অতুলনীয়! আমিও কিন্তু ওঁর রান্নার বিরাট ভক্ত।’’