একাত্তরে স্বাধীনতার যুদ্ধের সময়ে পাকিস্তানি বাহিনীর সহযোগী হিসাবে অপহরণ, নির্যাতন, খুন ও ধর্ষণের মতো ঘটনায় যুক্ত থাকার দায়ে নেত্রকোণার পূর্বধলার ৫ রাজাকার নেতাকে প্রাণদণ্ড দিল বাংলাদেশের যুদ্ধাপরাধ আদালত। তবে এই ৫ অপরাধীই ফেরার। 

শেখ মহম্মদ আব্দুল আজিজ, আব্দুল খালেক তালুকদার, কবির খান, আব্দুস সালাম বেগ এবং নুরউদ্দিন নামে এই পাঁচ আসামি আদতে নেজামে ইসলামি এবং মুসলিম লিগের স্থানীয় নেতা ছিলেন। পাক সেনাদের সহযোগী রাজাকার বাহিনীতে যোগ দিয়ে এঁরা স্বাধীনতাপন্থীদের ওপর চূড়ান্ত অত্যাচার করেছিলেন। ২৪০ পাতার রায়ে আদালত বলেছে, আসামিদের বিরুদ্ধে প্রসিকিউশনের আনা সাতটি  অভিযোগই প্রমাণিত হয়েছেন। এক মাসের মধ্যে তাঁরা সুপ্রিম কোর্টে আপিল করতে পারেন। কিন্তু তার আগে তাঁদের আত্মসমর্পণ করতে হবে। যুদ্ধাপরাধ আদালতে ৩৬টি মামলায় ৯২ জন আসামির মধ্যে ৮৫ জনের সাজা হল। এর মধ্যে ৫৮ জনের ফাঁসির রায় হয়েছে। বিচারাধীন অবস্থায় মারা গিয়েছিন পাঁচ জন।