• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

শিশুশিক্ষার খরচও জোগাতে পারে না বিশ্ব? প্রশ্ন নোবেলজয়ী সত্যার্থীর

kailash
কৈলাস সত্যার্থী।

বিশ্ব কি এতটাই হতদরিদ্র হয়ে পড়েছে যে শিশুদের প্রাথমিক শিক্ষাও নিশ্চিত করা যাবে না?

প্রশ্নটা তুললেন নোবেলজয়ী মানবাধিকার কর্মী কৈলাশ সত্যার্থী। ঢাকায় ১৩৬তম আইপিইউ সম্মেলনে সত্যার্থী বলেছেন, ‘‘আয়ের বিশ্বব্যাপী বৈষম্য রীতিমতো ‘অর্থনৈতিক সহিংসতার’ রূপ নিয়েছে। আর এই ‘সহিংসতা’ মানব জাতির নিরাপত্তা ও শান্তিকে বিপন্ন করে তুলছে।’’

বিশ্বের ১৩১টি দেশের আইনসভার সদস্যদের সামনে কৈলাশ সত্যার্থী বলেন, ‘‘আজই, এই ঢাকা থেকেই আমাদের শিশুদের জন্য কিছু করার জন্য ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। আমরা যখন এই সম্মেলন করছি, তখন ২৭ কোটি শিশু স্কুলে যেতে পারছে না। ২১ কোটি মানুষ বিক্রি হয়ে শ্রমদাসে পরিণত হয়েছে। এটা মেনে নেওয়া যায় না, সহ্য করা যায় না। এক দিকে ১০ কোটি শিশু দাসত্ব, পাচার ও শিক্ষা-বঞ্চনা সহ বিভিন্ন সহিসংতার শিকার হচ্ছে। অন্য দিকে ১০ কোটি তরুণ রয়েছেন, যাঁরা চাইছেন পৃথিবীটাকে বদলে দিতে। তাঁদের পৃথিবী বদলে দেওয়ার শক্তি, ক্ষমতা ও আদর্শ আছে। আমরা কি এই তরুণদের পাশে দাঁড়াতে পারি না? তরুণদের ক্ষমতা যদি নিশ্চিত করা যেত, তাদের কথা যদি শোনা হত, তাহলে এই পৃথিবী আরও আনন্দময় এবং শক্তিশালী হত। পৃথিবীকে সুন্দর করার শক্তি, আদর্শ, সম্ভাবনা তরুণদের আছে।’’
তিনি বলেন, কয়েক দশক আগে যুক্তরাষ্ট্রে এক জন সিইও ২০ জন শ্রমিকের সমান আয় করতেন। আর এখন এই বৈষম্য বেড়ে ১:২০০ হয়েছে। বিশ্বের ৫০ শতাংশ মানুষের সম পরিমাণ সম্পদ মাত্র আট জন ধনীর কাছে আছে। দিনে দিনে এই বৈষম্য বাড়ছে। বিশ্বের ২৩ কোটি শিশু সন্ত্রাসকবলিত এলাকায় বসবাস করছে। তাদের জীবন ও শিক্ষা বিপদগ্রস্ত। ২০ সেপ্টেম্বর এমপিরা নিজ নিজ স্কুলে যান। আপনাদের স্কুলে শিশুদের সঙ্গে সময় কাটান। আমরা চাই একটি নতুন সভ্যতা গড়তে, যা হবে বিশ্ব নাগরিকদের জন্য।’’

আরও পড়ুন- জম্মু-কাশ্মীরে এশিয়ার দীর্ঘতম সুড়ঙ্গ-সড়ক খুলে দিলেন প্রধানমন্ত্রী মোদী

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন