বাংলাদেশের প্রবীন টিভি অভিনেতা, পরিচালক, জাতীয় বেতার শিল্পী, নাট্যকার ফখরুল হাসান বৈরাগী কিছু দিন যাবত নিখোঁজ রয়েছেন। পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, ৭ অগস্ট তাঁর পরিবারের কাউকে কিছু না বলে তিনি নিরুদ্দেশ হয়ে যান। বিষয়টি নিয়ে বৈরাগী পরিবার দারুণ উৎকন্ঠায় ভুগছেন। এ বিষয়ে পুলিশের সাহায্য চাইলেও এখনও পর্যন্ত কোনও ফল পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছে তাঁর পরিবার।

বৈরাগীর নিখোঁজ হওয়ার খবরটি প্রথম ফেসবুক স্ট্যাটাসের মাধ্যমে জানান তাঁর ছেলে সামন্ত হাসান ইশা। তিনি লিখেছেন- “জনপ্রিয় টিভি অভিনেতা, পরিচালক, জাতীয় বেতার শিল্পী, বিখ্যাত নাট্যকার ফখরুল হাসান বৈরাগী আমার বাবা। গত ৭ অগস্ট থেকে তিনি নিখোঁজ। বাড়ির দারোয়ানের কথানুযায়ী তিনি সেই দিন আনুমানিক সওয়া ৯টা নাগাদ আমাকে কলেজে নামিয়ে আসার পর গাড়িটি পার্ক করে দারোয়ানের কাছে চাবিটি দিয়ে বেড়িয়ে যান।”

ফেসবুক স্ট্যাটাসটিতে জানানো হয়, ফখরুল হাসান বৈরাগী ওই দিন বাড়ি ফিরে না আসার পর থানায় জানানো হয়। পরিবারের পক্ষ থেকে সম্ভাব্য সব স্থানে খবর নেওয়া হয়েছে। কেউ কোনও সন্ধান পেলে ০১৯৬২৭৫৯৯৯৩ নম্বরে ফোন করার অনুরোধ জানানো হয়েছে।

টেলিফোনে সামন্ত হাসান জানান, এক মাসের উপর বাবা নিখোঁজ। তিনি বলেন, “প্রথমে ভেবেছিলাম কোনও বন্ধুবান্ধব কিংবা আত্মীয়স্বজনের বাড়িতে গিয়েছেন। কিন্তু খোঁজ নিয়ে দেখেছি কোথাও যাননি তিনি। আমরা ঢাকা শহরের মোটামুটি সব জায়গায় খোঁজ নেওয়ার চেষ্টা করেছি কিন্তু তাঁকে পাইনি। পরে ৮ অগস্ট থানায় জিডি করেছি আমরা। পুলিশ এখনও কোনও তথ্য দিতে পারেনি। এখন মিডিয়াতেও আমরা তাঁর নিখোঁজ হওয়ার সংবাদ জানানোর চেষ্টা করছি। তিনি অনেক দিন ধরেই মিডিয়া থেকে দূরে ছিলেন।”

তবে কোন থানায় জিডি করা হয়েছে বা জিডি নম্বর সম্পর্কে জানতে চাইলেও এ ব্যাপারে বিস্তারিত কিছু জানাতে চাননি তিনি। বৈরাগীর স্ত্রী রাজিয়া হাসান বলেন, “আমাদের এক ছেলে আর এক মেয়ে। আমরা আগে হাতিরপুলে শ্বশুরবাড়িতে থাকতাম। শেষ নয় মাস আমরা আলাদা বাড়ি ভাড়া নিয়ে আছি। বৈরাগী নিখোঁজ হওয়ার পর আমি শ্বশুড়বাড়িতে গিয়েছিলাম কিন্তু তাঁকে সেখানে পাইনি। বর্তমানে আমরা যেখানে ভাড়া আছি, নিরাপত্তাজনিত কারণে সেখানকার ঠিকানা প্রকাশ করতে চাই না। আমাদের একটাই চাওয়া, বৈরাগীকে কেউ খুঁজে পেলে আমাদের জানাবেন। আমরা মানসিক ভাবে ভেঙে পড়েছি। এ বারই প্রথম বৈরাগী আমাদের ছাড়া ঈদ করেছেন। এটা যে কতটা কষ্টের বলে বোঝানো যাবে না।”

বৈরাগীর স্ত্রী রাজিয়া হাসান আরও জানান, এ বার সপরিবারে তাঁদের হজে যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু আর্থিক সঙ্কটের কারণে আগামী বছর হজে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন তাঁরা।

আরও পড়ুন: How to dress up for Durga Puja?

মায়ের গলা কেটে খুন করে ছেলের আত্মহত্যার চেষ্টা