Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২০ অক্টোবর ২০২১ ই-পেপার

সেনসেক্স ২৩,৫৫১, নিফ্টি ৭,০১৪

ফলের দিকে তাকিয়ে নয়া নজির সূচকের

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ১৩ মে ২০১৪ ০২:২৪
খুশি। সোমবার বিএসই-তে। ছবি: পিটিআই

খুশি। সোমবার বিএসই-তে। ছবি: পিটিআই

উল্কার গতিতে ছুটছে সেনসেক্স। গত শুক্রবার ৬৫০ পয়েন্ট বাড়ার পর সোমবার আরও ৫৫৬.৭৭ পয়েন্ট। ফলে এ দিন সাড়ে তেইশ হাজারের মাইলফলকও পেরিয়ে গিয়েছে সূচক। বাজার বন্ধের সময় দাঁড়িয়েছে ২৩,৫৫১ পয়েন্টে। যা সেনসেক্সের উচ্চতার ফের এক নতুন নজির। একই গতিতে বেড়েছে ন্যাশনাল স্টক এক্সচেঞ্জের নিফ্টিও। এই সূচকটিও প্রথম বার পেরিয়ে গিয়েছে সাত হাজারের গণ্ডি। দিনের শেষে ১৫৫.৪৫ পয়েন্ট বেড়ে থিতু হয়েছে ৭,০১৪.২৫ অঙ্কে। ভোট পরবর্তী বুথ ফেরত সমীক্ষায় মোদীর নেতৃত্বে বিজেপির শক্তিশালী সরকার গঠনের সম্ভাবনা উঠে আসবে বাজারের এই প্রত্যাশাই এ দিন সূচক দু’টির বিপুল উত্থানের কারণ বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞেরা।

পরে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যম যখন বুথ ফেরত সমীক্ষা প্রকাশ করতে শুরু করেছে, ততক্ষণে বন্ধ হয়েছে বাজার। তবে লগ্নিকারীদের প্রত্যাশা মিটিয়েই সেখানে ধরা পড়েছে কেন্দ্রে বিজেপির নেতৃত্বে শক্তিশালী সরকার গড়ার সম্ভাবনার ছবি। ফলে সামনের কয়েক দিনে বাজার আরও তেজী হবে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞেরা। সাধারণত বাজার দ্রুত বাড়লে, মাঝপথে একটা সংশোধন (কারেকশন) আসাই স্বাভাবিক। তখন ফের কিছুটা নীচে নামে সূচক। কিন্তু বিশেষজ্ঞদের ধারণা, বাজারের প্রত্যাশা ও সমীক্ষায় প্রকাশিত সম্ভাবনা বাস্তবে মিলে গেলে অন্তত সপ্তাহখানেক সূচকের পিছন ফিরে তাকানোর সম্ভাবনা কম।

সুমেধা ফিস্কালের ডিরেক্টর বিজয় মুর্মুরিয়া বলেন, “মোদীর নেতৃত্বে বিজেপির সরকার গড়ার সম্ভাবনার উপর ভিত্তি করে সূচক কিন্তু এক মাস ধরেই বাড়ছে। ভোট পর্ব শেষের দিকে পৌঁছনোর সঙ্গে সঙ্গে বাজারের পারদও চড়েছে। বাজারের ওই প্রত্যাশা যদি পূরণ হয়, তা হলে সরকার গঠনের আগে পর্যন্ত সংশোধন আসার সম্ভাবনা কম।” তবে ফলাফল উল্টো হলে বাজারে ধস নামতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন বিশেষজ্ঞদের একাংশ। যদিও সিংহভাগেরই মত, ভোটের ফলে অঘটনের সম্ভাবনা এ বার নেহাতই কম।

Advertisement

সোমবারই ছিল ভোট পর্বের শেষ দিন। ভোটদান শেষ হওয়ার পরই বুথ ফেরত সমীক্ষায় দিল্লির মসনদে বিজেপির নেতৃত্বে শক্তিশালী সরকার গঠনের চিত্রটি পরিষ্কার হবে, এই আশায় লগ্নিকারীদের মধ্যে শেয়ার কেনার ধুম পড়ে। বিশেষত দু’হাত ভরে শেয়ার কিনেছে বিদেশি লগ্নিকারী সংস্থাগুলি।

কেন্দ্রে নয়া সরকার পরিকাঠামো উন্নয়নে জোর দেবে, এই আশায় সংশ্লিষ্ট শিল্পের শেয়ার দরও চোখে পড়ার মতো বেড়েছে। যেমন, লার্সেন অ্যান্ড টুব্রো, ওএনজিসি, এনটিপিসি ইত্যাদি। ৭.০৪% বেড়েছে কোল ইন্ডিয়ার শেয়ার দর। শিল্পের হাল ফিরলে ব্যাঙ্কগুলিরও অনুৎপাদক সম্পদ কমবে, এই সম্ভাবনায় বেড়েছে বিভিন্ন ব্যাঙ্কের দরও।

অবশ্য রিলায়্যান্স ইন্ডাস্ট্রিজের দর ৩ শতাংশের বেশি বেড়ে যাওয়াও এ দিন গুরুত্বপূর্ণ হয়ে ওঠে বাজারের উত্থানে। কেজি বেসিনের গ্যাসের সংশোধিত দাম চালুর দাবি নিয়ে কেন্দ্রকে সালিশি নোটিস পাঠানোর খবরই যার কারণ।

আরও পড়ুন

Advertisement