Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৯ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

সংযুক্তি শর্তসাপেক্ষে

র‌্যানব্যাক্সিকে হাতে নিতে মার্কিন অনুমোদন পেল সান

র‌্যানব্যাক্সি ল্যাবরেটরিজকে কিনে নেওয়ার ব্যাপারে এ বার শর্তসাপেক্ষে মার্কিন বাণিজ্য নিয়ন্ত্রকের অনুমোদন পেল সান ফার্মা। প্রতিযোগিতার স্বা

সংবাদ সংস্থা
ওয়াশিংটন ০১ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ ০০:৫৪
Save
Something isn't right! Please refresh.
Popup Close

র‌্যানব্যাক্সি ল্যাবরেটরিজকে কিনে নেওয়ার ব্যাপারে এ বার শর্তসাপেক্ষে মার্কিন বাণিজ্য নিয়ন্ত্রকের অনুমোদন পেল সান ফার্মা।

প্রতিযোগিতার স্বার্থেই দু’টি সংস্থার সংযুক্তির শর্ত হিসেবে মার্কিন মুলুকে জেনেরিক মাইনোসাইক্লিন ট্যাবলেট এবং ক্যাপসুল বিক্রি বন্ধ করতে হবে র্যানব্যাক্সিকে, যা একটি অ্যান্টিবায়োটিক। পাশাপাশি, ওই নিয়ন্ত্রক ফেডারেল ট্রেড কমিশন এই সংক্রান্ত ব্যবসার পুরোটাই আর এক ভারতীয় ওষুধ সংস্থা টরেন্ট ফার্মাসিউক্যালসকে বিক্রি করে দিতে বলেছে। আর যত দিন টরেন্ট নিজে ওই ওষুধ তৈরির পরিকাঠামো গড়তে না-পারবে, তত দিন তাকে ওষুধ সরবরাহ করতে হবে সান-র্যানব্যাক্সিকে।

জাপানের দায়িচি স্যাঙ্কিও-র হাত থেকে ৩২০ কোটি ডলারে র্যানব্যাক্সি কিনে নেওয়ার ব্যাপারে গত এপ্রিলে প্রস্তাব দিয়েছিল সান ফার্মা। কিন্তু প্রতিযোগিতার নিয়ম ভাঙার কারণ দেখিয়ে আপত্তি তোলে ভারতের প্রতিযোগিতা কমিশন। শেষ পর্যন্ত ডিসেম্বরে তারা শর্তসাপেক্ষে সায় দিয়ে জানায়, অনুমতি পেতে র্যানব্যাক্সিকে ৬টি এবং সান ফার্মাকে ১টি ব্র্যান্ড বিক্রি করতে হবে। এ বার আমেরিকাও শর্তসাপেক্ষে সবুজ সঙ্কেত দেওয়ায় ভারতে বৃহত্তম ও বিশ্বে পঞ্চম স্থানে থাকা জেনেরিক ওষুধ সংস্থা তৈরির পথে বাধা কাটল বলে মনে করছে শিল্পমহল।

Advertisement

উল্লেখ্য, ওষুধের মান নিয়ে আমেরিকা-ইউরোপের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরেই টানাপড়েন চলছে র্যানব্যাক্সি ও সান ফার্মা-র। তবে সান প্রতিষ্ঠাতা দিলীপ সাংভির দাবি, সংযুক্তির পরে তাঁদের মূল লক্ষ্যই হবে রফতানির বাজারে হারানো জমি ফিরে পাওয়া।



Something isn't right! Please refresh.

Advertisement