বুথ ফেরত সমীক্ষার ইঙ্গিত, কেন্দ্রে ফের ক্ষমতায় আসতে পারে এনডিএ। যদিও গত কয়েক বছরে কাজ তৈরির ক্ষেত্রে নরেন্দ্র মোদী সরকারের যে খামতি রয়ে গিয়েছে তা বিরোধীদের পাশাপাশি একাধিক বার বলেছে বিভিন্ন মহল। সোমবার ফের একই ইঙ্গিত দিলেন রিজার্ভ ব্যাঙ্কের প্রাক্তন গভর্নর বিমল জালান এবং অর্থনীতিবিদ সুরজিৎ ভল্লা। প্রথম জন শীর্ষ ব্যাঙ্কের ভাঁড়ার সংক্রান্ত কমিটির প্রধান। অন্য জন প্রধানমন্ত্রীর অর্থনৈতিক উপদেষ্টা পরিষদের প্রাক্তন সদস্য।

এ দিন জালান বলেন, গত পাঁচ বছরে নরেন্দ্র মোদীর সরকার বেশ কয়েকটি সংস্কারমূলক পদক্ষেপ করেছে। কিন্তু কর্মসংস্থান বাড়ানোর লক্ষ্যে আরও কিছু সংস্কার করতে হবে পরবর্তী সরকারকে। জালানের বক্তব্য, ‘‘একটা বিষয়ে প্রত্যেকেই এক মত যে, কাজ তৈরির হার সত্যিই কম। আর্থিক সংস্কারের গতি কম হওয়াও এর সম্ভাব্য কারণ।’’

দিল্লি দখলের লড়াই, লোকসভা নির্বাচন ২০১৯

 

এ দিনই বণিকসভা ফিকির অনুষ্ঠানে ভল্লা বলেন, ‘‘ভারতে পুঁজির খরচ এবং কোম্পানি কর বেশি। প্রকৃত সুদের হারও ৩.৫ শতাংশের বেশি হওয়া উচিত নয়। পরবর্তী সরকারের উচিত কোম্পানি করকে ৫ শতাংশে নামিয়ে আনা।’’ সেইসঙ্গে আয় নিশ্চিত করার কেন্দ্রীয় প্রকল্পগুলিতে জোর দেওয়ার কথাও বলেছেন তিনি। তাৎপর্যপূর্ণ ভাবে তিন বছরের মধ্যে ন্যূনতম সহায়ক মূল্য তুলে দেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন ভল্লা। আদতে কৃষকদের দাবি মেনে যা দেড় গুণ করার কথা বলে মোদী সরকার।