গত ১ এপ্রিল থেকে তৈরি হওয়া সব গাড়িতেই বাড়তি সুরক্ষার নম্বর-প্লেট (হাই সিকিউরিটি রেজিস্ট্রেশন প্লেট বা এইচএসআরপি) লাগানোর দায়িত্ব সংশ্লিষ্ট গাড়ি সংস্থার উপর চাপিয়েছে কেন্দ্রীয় সড়ক পরিবহণ মন্ত্রক। কিন্তু এ রাজ্যের পরিবহণ দফতর সেই নির্দেশ মানতে নারাজ। ফলে ধন্দে গাড়ি শিল্প। 

রাজ্যের পরিবহণ দফতরের ডেপুটি সেক্রেটারি গত ৮ এপ্রিল বিজ্ঞপ্তিতে জানান, চালু নিয়ম মেনে আঞ্চলিক পরিবহণ দফতরগুলিই এইচআরএসপি লাগাবে। দফতরের এক পদস্থ কর্তার দাবি, সুরক্ষার স্বার্থেই বিষয়টি রাজ্যের হাতে থাকা উচিত। কেন্দ্রকে তাঁরা সে কথা জানিয়েছেন। ফলে কেন্দ্র না রাজ্য— কার নিয়মে তারা চলবে তা নিয়ে সমস্যায় গাড়ি শিল্প। এরই মধ্যে এপ্রিলে তৈরি হওয়া গাড়ি বাজারে আসতে শুরু করেছে। সংস্থাগুলির সংগঠন সিয়ামের ডেপুটি এগ্‌জ়িকিউটিভ ডিরেক্টর অতনু গঙ্গোপাধ্যায়ের বক্তব্য, ‘‘গাড়ি সংস্থাগুলি কোন নিয়ম মানবে, তা দ্রুত স্পষ্ট হলে শিল্পের সুবিধা হয়।’’ 

কেন্দ্রের নিয়মের কিছু বিষয়ে অস্বচ্ছতার অভিযোগ করে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছে সিয়াম। কিন্তু এখনও শুনানি না হওয়ায় আপাতত কেন্দ্রের নির্দেশই কার্যকর থাকছে। 

উল্লেখ্য, গাড়ি চুরি রুখতে নতুন গাড়িতে এইচএসআরপি চালু হয়েছিল আগেই। এত দিন তা দিত বিভিন্ন রাজ্যের সংশ্লিষ্ট পরিবহণ দফতর। ডিসেম্বরে কেন্দ্র জানায়, ২০১৯ সালের ১ এপ্রিল থেকে তৈরি গাড়িগুলির জন্য সেই প্লেট বানাবে গাড়ি সংস্থা। অর্থাৎ, ক্রেতা যে ডিলারের কাছ থেকে গাড়ি কিনবেন, দফতরে নথিভুক্তির (রেজিস্ট্রেশন) পরে সেই ডিলারের মাধ্যমেই প্লেটটি গাড়িতে লাগিয়ে দেবে সংস্থা।