পঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাঙ্ক কেলেঙ্কারিতে নীরব মোদী ও মেহুল চোক্সীর বিরুদ্ধে পরোয়ানা জারি করল আদালত। এ দিনই সিবিআই অন্য এক আদালতে জানিয়েছে, ব্যাঙ্কের এক আধিকারিককে ঘুষ হিসেবে সোনার কয়েন দিয়েছেন নীরব।

মঙ্গলবার মুম্বইয়ের আর্থিক দুর্নীতি দমন আদালতে নীরব ও মেহুলের বিরুদ্ধে জামিনঅযোগ্য পরোয়ানা জারির আর্জি জানায় ইডি। সরকারি আইনজীবী জানান, দু’বার সমন পাঠানো সত্ত্বেও জিজ্ঞাসাবাদের জন্য হাজির হননি নীরব।

ইডি-কে দু’টি চিঠি পাঠিয়েছেন নীরব। তাতে তিনি জানিয়েছেন, পাসপোর্ট সাসপেন্ড হওয়ার পরে তার কারণ জানতে চেয়েছিলেন। কিন্তু সেই চিঠি পাঠানোর কয়েক মিনিটের মধ্যেই তাঁর পাসপোর্ট খারিজ হয়ে যায়। নীরবের বক্তব্য, ‘‘এ থেকেই বোঝা যাচ্ছে আমার সম্পর্কে কী পদক্ষেপ করা হবে তা আগে থেকেই স্থির করা আছে।’’ সেই সঙ্গে তাঁর সংস্থার কর্মী কবিতা মনিক্করের গ্রেফতারির প্রসঙ্গ টেনে তদন্তকারীদের খোঁচা দিয়েছেন তিনি। নীরবের বক্তব্য, ‘‘আইন ভেঙে সূর্যাস্তের পরে ওই মহিলা কর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এর পরে নিরাপত্তা নিয়ে আমার দুর্ভাবনার যথেষ্ট কারণ আছে।’’

মুম্বইয়ের সিবিআই আদালতে তদন্তকারীদের তরফে জানানো হয়, পিএনবির এক শাখায় বিদেশি মুদ্রা দফতরের ম্যানেজার যশবন্ত জোশীকে ঘুষ হিসেবে ৬০ গ্রামের দু’টি সোনার কয়েন ও এক জোড়া হীরের দুল দিয়েছিলেন নীরব। জোশীর বাড়ি থেকে তা উদ্ধারও হয়েছে।