পঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাঙ্কে (পিএনবি) নীরব মোদী ও মেহুল চোক্সী কেলেঙ্কারির জের চলার মধ্যেই বিশ্ব জুড়ে বাণিজ্য-যুদ্ধের দামামা।

এই দুইয়েরই যোগফলে মঙ্গলবার এক ধাক্কায় প্রায় ৪৩০ পয়েন্ট পড়ল সেনসেক্স। ১০৯ পয়েন্ট খুইয়েছে ন্যাশনাল স্টক এক্সচেঞ্জের সূচক নিফ্‌টিও। এ নিয়ে টানা পাঁচ দিনের পতনে লগ্নিকারীরা হারালেন প্রায় ৪.৩০ লক্ষ কোটি টাকার সম্পদ। শুধু এ দিনই সেই অঙ্ক ১.৫৪ লক্ষ কোটি।

নীরব মোদী ও মেহুল চোক্সীর সংস্থাগুলির সঙ্গে যে ৩১টি ব্যাঙ্ক লেনদেন করেছে, মঙ্গলবার তাদের কর্তাদের চিঠি পাঠিয়েছে কোম্পানি বিষয়ক মন্ত্রকের গুরুত্বপূর্ণ জালিয়াতি তদন্তকারী সংস্থা সিরিয়াস ফ্রড ইনভেস্টিগেশন অফিস। ডেকে পাঠানো হয়েছে আইসিআইসিআই ব্যাঙ্কের কর্ণধার ছন্দা কোছর, অ্যাক্সিস ব্যাঙ্কের সিএমডি শিখা শর্মাকে। আর এই খবর আসার পরেই ধস নেমেছে বিভিন্ন ব্যাঙ্কের শেয়ার দরে।

এ দিন ব্যাঙ্কের শেয়ার দরের ২.৭৭% পতনে ইন্ধন জুগিয়েছে অনুৎপাদক সম্পদ সংক্রান্ত নিয়ম না মানার জেরে রিজার্ভ ব্যাঙ্কের অ্যাক্সিস ব্যাঙ্ককে ৩ কোটি টাকা জরিমানা করার খবরও। ইন্ডিয়ান ওভারসিজ ব্যাঙ্কে কেওয়াইসির নিয়ম না মানায় জরিমানা করা হয়েছে ২ কোটি।

দিনের শুরুতে অবশ্য উঠছিল বাজার। মার্কিন মুলুকে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের অ্যালুমিনিয়াম ও ইস্পাতে শুল্ক বসানোর সিদ্ধান্তে আপত্তি তুলেছেন তাঁর রিপাবলিকান দলেরই প্রতিনিধিরা। এই খবরে সেনসেক্স ৩০০ পয়েন্ট উত্থানের মুখ দেখে দিন শুরু করে। কিন্তু পরের দিকে ব্যাঙ্কের খবরে শুরু হয় ধস। শেষ পর্যন্ত সেনসেক্স দাঁড়িয়েছে ৩৩,৩১৭.২০ অঙ্কে। পাঁচ দিনে সেনসেক্স খুইয়েছে ১,১২৯ পয়েন্ট। নিফ্‌টি থেমেছে ১০,২৪৯.২৫ অঙ্কে।

পতনের কারণ

• নীরব মোদী-কাণ্ডে ৩১টি ব্যাঙ্কে চিঠি এসএফআইও-র। তলব ছন্দা কোছর, শিখা শর্মাকে

• বিশ্ব জুড়ে শুল্ক-যুদ্ধের দামামা

দিনভর

• সেনসেক্স পড়ল ৪৩০ পয়েন্ট

• নিফ্‌টি হারাল ১০৯ পয়েন্ট

• এক দিনেই মুছল লগ্নিকারীদের ১.৫৪ লক্ষ কোটির সম্পদ

নজর যে দিকে

• পিএনবি-কেলেঙ্কারির জল কোন দিকে গড়ায়

• মার্কিন মুলুকে শুল্ক বসে কি না

এ দিন অবশ্য ডলারের সাপেক্ষে ১৬ পয়সা বেড়েছে টাকার দর। প্রতি ডলারের দাম দাঁড়িয়েছে ৬৪.৯৬ টাকা। গত এক মাসে যা সর্বাধিক।

তবে মঙ্গলবারের পতন যে শুধুমাত্র পিএনবি-কাণ্ডের জের, তা মানতে নারাজ বিশেষজ্ঞদের অনেকে। বিশেষজ্ঞ অজিত দের মতে, শুল্ক যুদ্ধের প্রভাব থেকে ভারতের বাজার বেরিয়ে এসেছে মনে করলে ভুল হবে। তিনি বলেন, ‘‘এই ঘটনার জেরে বিশ্ব বাজার যতটা পড়েছে, ভারতে এখনও ততটা পড়েনি। কারণ, শুক্রবার দোল উপলক্ষে এখানে বাজার বন্ধ ছিল। কিন্তু ওই দিন বিশ্ব বাজারে বড় পতন হয়েছে।’’ তবে তাঁর মতে, ভারতের বাজারে শেয়ারের দামে সংশোধন এখনও শেষ হয়নি।

একই সুর স্টুয়ার্ট সিকিউরিটিজের চেয়ারম্যান কমল পারেখের গলায়ও। তিনি বলেন, ‘‘নিফ্‌টি ১০ হাজারে নামার আগে সংশোধন শেষ হয়েছে বলে আমি মানতে নারাজ।’’