নদীপথে পণ্য পরিবহণের সুবিধা বাড়াতে হুগলির বলাগড়ে একটি ছোট টার্মিনাল ও তাকে ঘিরে শিল্পাঞ্চল গড়তে চান কলকাতা বন্দর কর্তৃপক্ষ (কেপিটি)। তাঁদের দাবি, এর ফলে কলকাতা বা হলদিয়া বন্দর থেকে সড়কপথে পণ্য পরিবহণের জট অনেকটা কমে দ্রুত বলাগড় থেকে উত্তর ভারতে পণ্য পরিবহণ করা যাবে। 

বৃহস্পতিবার সিআইআইয়ের রাজ্য শাখার বার্ষিক সভায় কেপিটির চেয়ারম্যান বিনীত কুমার জানান, কলকাতা বা হলদিয়া বন্দরে পণ্য খালাসের পরে সেখান থেকে সড়ক বা রেল পথে পরিবহণ করতে সময় লাগে। তাই নদীপথ পরিবহণে জোর দিতে হুগলির বলাগড়ে কেপিটি-র হাতে থাকা ৩০০ একর জমিতে টার্মিনালটি গড়তে চান তাঁরা।

হলদিয়া থেকে এলাহাবাদ পর্যন্ত ‘ন্যাশনাল ওয়াটারওয়েজ-১’ প্রকল্পে ছ’টি বড় টার্মিনাল হওযার কথা, যার মধ্যে রয়েছে হলদিয়া, এলাহাবাদ, বারাণসী ইত্যাদি। সে ক্ষেত্রে বলাগড়ে ছোট টার্মিনাল হলে নদীপথে পণ্য পরিবহণে বাড়তি সুবিধা হবে। হলদিয়া বা কলকাতা বন্দরে পণ্য খালাসের পরে তা সড়ক পথে পাঠাতে বাড়তি সময় লাগবে না। সেখান থেকে বার্জে করে সোজা নদীপথে বলাগড়ের ছোট টার্মিনালে তা পাঠানো যাবে। 

তবে কুমারের দাবি, প্রকল্পের পূর্ণাঙ্গ রিপোর্ট তৈরি না হওয়া পর্যন্ত লগ্নির অঙ্ক নিয়ে কিছু বলা সম্ভব নয়। মাস তিনেকে তা তৈরি করার কথা। টার্মিনাল তৈরি হলে সেখানে একটি শিল্পাঞ্চল গড়ার সম্ভবনা খতিয়ে দেখা হবে, জানান কেপিটি চেয়ারম্যান। সে ক্ষেত্রে ওই শিল্পাঞ্চলে জায়গা নেওয়া সংস্থাগুলি নদীপথে পণ্য পরিবহণের বাড়তি সুবিধা নিতে পারবে।