দেশে ব্যাঙ্ক নয় এমন আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলি (এনবিএফসি) যে গুরুতর সমস্যার মুখে, তা কার্যত মেনে নিল কেন্দ্র। রবিবার কর্পোরেট বিষয়ট সচিব ইনজেতি শ্রীনিবাস বলেন, ঋণ পেতে সমস্যা এবং কিছু বড় সংস্থার পরিচালনায় ত্রুটির জেরে এই ক্ষেত্রে ‘সঙ্কট আসন্ন’।

গত বছর অগস্টে আইএল অ্যান্ড এফএসের সমস্যা প্রথম সামনে আসার পর থেকেই এনবিএফসিগুলির স্বাস্থ্য নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। তা আরও জোরালো হয়েছে আর এক এনবিএফসি দিওয়ান হাউসিং ফিনান্সের ব্যবসার ধরন নিয়ে অভিযোগ ওঠার পরে। আজ শ্রীনিবাসের দাবি, এনবিএফসিগুলির ঋণ পেতে সমস্যা হচ্ছে। অথচ বেশি ধার দিচ্ছে। জোর দিচ্ছে কোনও একটি ক্ষেত্রে। একই সঙ্গে সম্পদের তুলনায় দায় বেশি। আবার কিছু ক্ষেত্রে খুব বড় সংস্থাগুলির পরিচালনাতেও ত্রুটি রয়েছে। সব মিলিয়ে এই শিল্পের বিপর্যয়ের আয়োজন তৈরি।

আইএল অ্যান্ড এফএস কাণ্ড সামনে আসার পরে মোদী সরকারের বিরুদ্ধে তোপ দেগেছিলেন বিরোধীরা। তখন এনবিএফসি, বিশেষ করে গৃহঋণ সংস্থাগুলির নগদের সমস্যা যে চিন্তার, তা স্বীকার করেছিলেন শ্রীনিবাস। বলেছিলেন, সংস্থাগুলির ব্যবসার ধরন ভালভাবে খতিয়ে দেখা উচিত। তাঁর বক্তব্য ছিল, এটা সামগ্রিক ভাবে এই শিল্পেরই সমস্যা। তাই দীর্ঘ মেয়াদে সংস্থাগুলির ব্যবসা চালিয়ে যেতে কী করণীয়, তা খুঁজে বার করা উচিত। টাকা জোগাড় ও ঋণ বণ্টনের মধ্যে সামঞ্জস্য তৈরিও তার অঙ্গ। তবে তাঁর মত ছিল, একে সঙ্কট বলা চলে না। আজ অবশ্য সেই সঙ্কট আসন্ন বলেই মানলেন তিনি।

একই সঙ্গে সচিবের মতে, যে সব সংস্থা নিয়ম মেনে ও দায়িত্ব নিয়ে কাজ করে, সেগুলির ক্ষেত্রে সমস্যা হচ্ছে না। অনুৎপাদক সম্পদের জন্য শুধুমাত্র বাইরের ঘটনাকে দায়ী করা ঠিক নয় বলেও জানান শ্রীনিবাস। তাঁর মতে, এনবিএফসির সমস্যা ভারতের সংস্থা পরিচালনারও বড় পরীক্ষা। এতে এখন ভুগতে হলেও, দীর্ঘ মেয়াদে ভাল হবে।