গ্রাহকদের জমা রাখা টাকা যে সম্পূর্ণ সুরক্ষিত, বারবার সেই আশ্বাস দিচ্ছে নীরব-বিতর্কে জেরবার পঞ্জাব  ন্যাশনাল ব্যাঙ্ক (পিএনবি)। রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কটির দাবি,  তাদের কাছে যা সম্পদ রয়েছে, তা আর্থিক ক্ষতি সামাল দেওয়ার পক্ষেও যথেষ্ট। কিন্তু তা সত্ত্বেও চিন্তামুক্ত হতে পারছেন না গ্রাহকরা। তাঁদের নিজেদের মধ্যে আলোচনায় ঘুরেফিরে আসছে প্রশ্ন, ‘টাকা মার যাবে না তো?’ এমনকী গুজব ছড়ানোয় টাকা তোলার হিড়িকও দেখা গিয়েছে কিছু শাখাতে।

যেমন ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষই বলছেন, কালনার নিভুজি মোড় শাখায় টাকা তোলার হিড়িক শুরু হয়েছে শুক্রবার থেকে। ইতিমধ্যেই তুলে নেওয়া টাকার অঙ্ক তিন কোটির বেশি। ব্যাঙ্ক সূত্রে খবর, ওই শাখায় গ্রাহক সংখ্যা প্রায় ২৫ হাজার। দিনে সাধারণত তোলা হয় ১৫-২০ লক্ষ টাকা।

মঙ্গলবার ব্যাঙ্কের শাখার সামনে দাঁড়ানো স্থানীয় বাসিন্দা হাফিজুল মল্লিক, মইদুল ইসলামরা বলেন, ‘‘শুনছি ব্যাঙ্ক উঠে যেতে পারে! তাই সঞ্চিত টাকা তুলে নিচ্ছি।’’ আর এক গ্রাহক জিকু শেখ বলেন, ‘‘অ্যাকাউন্টে সাড়ে তিন হাজার টাকা ছিল। সবটাই তুলে অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দিয়েছি।’’ ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষের অবশ্য দাবি, ‘‘কিছু শাখায় টাকা তোলার অঙ্ক বেড়েছে। তবে তা নিয়ে সমস্যা তৈরি হয়নি।’’ তাঁদের মতে, অতীতে অনেক বড় সমস্যা কাটিয়ে ওঠা সম্ভব হয়েছে। এ বারও দ্রুত সঙ্কট কাটিয়ে ওঠা যাবে।

শাখাটির ম্যানেজার অলোক তালুকদারের দাবি, ‘‘হয়তো কোনও বেসরকারি বা বেআইনি অর্থলগ্নি সংস্থা পরিকল্পিত ভাবেই এমন গুজব ছড়াচ্ছে। তবে এখানে টাকা রাখা যে নিরাপদ, মাইকে সেই প্রচার করছি।’’

ব্যাঙ্কের দাবি

• আমানত নিয়ে চিন্তার কোনও কারণ নেই। তা সম্পূর্ণ সুরক্ষিত

• ব্যাঙ্কের যা সম্পদ, তাতে ক্ষতি সামাল দিতে অসুবিধা হবে না

• কিছু শাখায় টাকা তোলা বেড়েছে ঠিকই। কিন্তু তা মূলত উদ্বেগ আর গুজবের কারণে

• এর আগে অনেক বড় সমস্যা কাটিয়ে ওঠা সম্ভব হয়েছে। অন্যথা হবে না এ বারও

তবু উদ্বেগ

• আশ্বাস সত্ত্বেও পিএনবিতে জমা রাখা টাকা নিয়ে উদ্বিগ্ন অনেক গ্রাহক

• তড়িঘড়ি টাকা তুলে নেওয়ার হিড়িক কিছু শাখায়। অনেক জায়গায় ছড়াচ্ছে গুজবও

• কালনার নিভুজি মোড় শাখায় গ্রাহকরা তুলেছেন তিন কোটি টাকা। এমনিতে গড় ২০ লক্ষ

খটকা যেখানে

• টাকা তুলে নিতে বলে কেউ প্রচার চালাচ্ছে কি? গুজব ছড়ানো হচ্ছে কি ইচ্ছে করেই?

• তোলা টাকা বেআইনি লগ্নি সংস্থায় জমা পড়বে না তো?