তেলের দাম ২০১৪-র মাঝামাঝি থেকেই পড়তির দিকে। তার জেরে রাজকোষ ঘাটতি ছুঁয়েছে দেশের জাতীয় আয়ের ১৬%। অত্যধিক তেল নির্ভরতা থেকে অর্থনীতিকে বার করে আনতে তাই সংস্কারের পথে পা রাখার কথা এপ্রিলেই ঘোষণা করেছিল সৌদি আরব। রাজা সলমনের সেই ১৫ বছরের পথনির্দেশিকা ‘ভিশন ২০৩০’ ধাপে ধাপে রূপায়ণে সোমবার সায় দিল এ দেশের আর্থিক উন্নয়ন পরিষদ। এই কর্মসূচির আওতায় জাতীয় সংস্কার পরিকল্পনার চূড়ান্ত খসড়ায় সিলমোহর দিয়েছে তারা। উল্লেখ্য পরিষদের প্রধান সৌদির সিংহাসনের দ্বিতীয় দাবিদার যুবরাজ মহম্মদ বিন সলমন।

পরিকল্পনার অন্যতম পদক্ষেপ রাষ্ট্রায়ত্ত বৃহৎ তেল সংস্থা অ্যারামকোর আংশিক বিলগ্নিকরণ। অন্যান্য দেশে তেল উৎপাদনে লগ্নিতে আগ্রহ দেখিয়েছে অ্যারামকো। সেই সূত্রেই ভারতের তেলমন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান জানিয়েছেন, মহারাষ্ট্রের উপকূলে ১.৫ লক্ষ কোটি টাকার তেল শোধনাগার প্রকল্পের কিছুটা অংশীদারি সৌদি আরবের হাতে দিতে চান।