টাকার দামে পতন, তেলের দর বৃদ্ধি ও মার্কিন-চিন শুল্ক যুদ্ধ। এই ত্র্যহস্পর্শে টালমাটাল শেয়ার বাজার। সোমবার সেনসেক্স ৪৬৭.৬৫ পয়েন্ট পড়ার পরে মঙ্গলবারও তা নেমেছে ৫০৯ পয়েন্ট। দু’দিনের লেনদেনে খুইয়েছে প্রায় হাজার পয়েন্ট। লগ্নিকারীরা হারিয়েছেন প্রায় ৪ লক্ষ টাকার শেয়ার মূল্য। এ দিন নিফ্‌টিও ১৫০.৬০ পয়েন্ট পড়েছে। দিনের শেষে সেনসেক্স ও নিফ্‌টি থেমেছে যথাক্রমে ৩৭,৪১৩.১৩ এবং ১১,২৮৭.৫০ অঙ্কে।

লগ্নিকারীরা চিন্তিত হলেও, সূচকের এই পতনকে স্বাগত জানাচ্ছেন বিশেষজ্ঞদের অনেকেই। তাঁদের মতে, গত কয়েক মাসে সূচক যে গতিতে উঠেছে, তাতে কৃত্রিমতা রয়েছে। তাই দীর্ঘ মেয়াদে বৃদ্ধি ধরে রাখতে প্রয়োজন আরও সংশোধন।

স্টুয়ার্ট সিকিরিটিজ়ের চেয়ারম্যান কমল পারেখ বলেন, মার্চ থেকে অগস্ট,এই ৬ মাসে নিফ্‌টি বেড়েছে ১,৮৬০ পয়েন্ট (প্রায় ২০%)। তাঁর মতে, বাজারকে শক্ত জমিতে দাঁড় করাতে সূচক অন্তত ৭% নামা উচিত।

এ দিকে, পড়তি বাজারে কেউ যাতে শেয়ারের দামকে প্রভাবিত করে বেআইনি ভাবে মুনাফা তোলার চেষ্টা না করে, সেই হুঁশিয়ারি দিল সেবি। চেয়ারম্যান অজয় ত্যাগী জানালেন, সে দিকে কড়া নজর রাখছেন তাঁরা।