দু’মাস বয়সের এক শিশুর অস্বাভাবিক মৃত্যু হয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে, মৃতের নাম সৌরভ ভট্টাচার্য। 

পুলিশ সূত্রের খবর, বেহালা ট্রাম ডিপোর কাছে ফুটপাতে স্ত্রী মৌসুমী ও দু’মাসের শিশুকে নিয়ে থাকেন জয়ন্ত ভট্টাচার্য। তাঁদের মোট তিন ছেলেমেয়ে। বড় ও মেজ মেয়ে বেহালায় দাদুর কাছে থাকে। পুলিশ জানিয়েছে, একটি বেসরকারি সংস্থার কর্মী জয়ন্ত মঙ্গলবার রাতে নাইট ডিউটিতে গিয়েছিলেন। মঙ্গলবার রাত দশটা নাগাদ শিশুপুত্র সৌরভ অসুস্থ হড়ে পড়ায় তাকে বেহালার বিদ্যাসাগর জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যান মা মৌসুমী। বুধবার মৌসুমী বলেন, ‘‘হাসপাতালে ছেলেকে দেখানোর পর রাত এগারোটা নাগাদ ফিরে আসি। হাসপাতাল থেকে একটা সিরাপ দিয়েছিল। ওই সিরাপ খাওয়ানোর পর দুধ খাইয়েছিলাম। রাত তিনটে নাগাদ দুধ খাওয়ানোর পর বাচ্চার হেঁচকি উঠতে থাকে।’’ মৌসুমী বলেন, ‘‘কয়েক বার হেঁচকির পরে নাক দিয়ে রক্ত বেরিয়ে আসে।’’ ছেলের শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে রাতেই কাছাকাছি থাকা বাবা-মা’র কাছে চলে আসেন মৌসুমি। তিনি জানান, বুধবার সকালে ছেলেকে নিয়ে ফের বিদ্যাসাগর হাসপাতালে গেলে চিকিৎসকেরা শিশুটিকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

এ দিন বিকেলে থানার সামনে মৃত শিশুর দিদিমা কাঁদতে কাঁদতে বলছিলেন, ‘‘বিকেলেও নাতি খেলছিল। সামান্য পেট ব্যথা ছাড়া ওর কোনও রোগ ছিল না। মনে হচ্ছে, দুধ গলায় আটকে যাওয়াতেই এই বিপত্তি ঘটল।’’ পুলিশ মৃত শিশুর দেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে। অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা রুজু করে তদন্ত করেছে বেহালা থানার পুলিশ। মৃত শিশুর পরিবারের তরফে জানানো হয়েছে, জন্মের পর থেকেই সৌরভ পেট ব্যথায় ভুগছিল। তবে বাচ্চার মৃত্যুর কারণ খতিয়ে দেখতে বেহালা থানার পুলিশ মৃত শিশুর বাবা- মাকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে। 

দিল্লি দখলের লড়াইলোকসভা নির্বাচন ২০১৯