প্রাক্তন পরিবহণমন্ত্রী মদন মিত্রের সঙ্গে দার্জিলিং ঘোরার সুযোগ। তা-ও আবার বিনামূল্যে!

দক্ষিণ কলকাতা জুড়ে এমনই হোর্ডিং, ব্যানারে চোখ আটকাচ্ছে সকলের। অনেকেই ভাবছেন, এমন সুযোগ হাতছাড়া করার নয়। হোর্ডিং-ব্যানারে লেখা ফোন নম্বর কিংবা যোগাযোগের জায়গার নামও কেউ কেউ লিখে রাখছেন। তা হলে শৈল শহরে রওনার তারিখ কবে? থাকা হবে কোথায়? দর্শনীয় জায়গার তালিকাতেই বা কী থাকছে?

প্রশ্ন শুনেই হেসে ফেললেন মদন। বললেন, ‘‘না, না কোথাও যাচ্ছি না। ওটা কার্তিক পুজোর মণ্ডপের থিম। মানুষের কাছে খুশির ও হাসির ঝলক পৌঁছে দিতেই এমন টিজ়ার।’’

‘ভবানীপুর ইউনাইটেড ইয়ুথ ফোরাম’-এর কার্তিক পুজোর থিম এ বার দার্জিলিং। টয় ট্রেন থেকে পাহাড়ি রাস্তায় বাস-গাড়ি চলতেও দেখা যাবে ওই মণ্ডপে। ক্লাবের সভাপতি মদনের দাবি, কাশ্মীরে না যেতে পারার দুঃখ ভ্রমণপিপাসুদের মিটতে পারে দার্জিলিংয়ে গিয়ে। দার্জিলিং পর্যটনে জোর দিতেও এমন অভিনব প্রচার। যেখানে লেখা হয়েছে, ‘‘যদি মনে তোমার বঞ্চনার পাহাড় জমেছে রাশি রাশি, নভেম্বরে বিনামূল্যে চলুন তবে দার্জিলিং বেড়িয়ে আসি। সঙ্গে থাকছেন মদন মিত্র।’’

চমক: মণ্ডপের গায়ে সেই টিজ়ার। শুক্রবার। ছবি: সুমন বল্লভ

গত বছরের মতো এ বার ডিসেম্বরেও আন্তর্জাতিক শিশুনাট্য উৎসবে ‘কন্যাশ্রী’ বিষয়ের উপরে নাটকে অভিনয় করবেন মদন। এক সময়ে রাজনীতির প্রথম সারিতে দেখা গেলেও এখন তিনি মূল স্রোত থেকে বেশ দূরে। আর তাই কি তিনি অভিনয় কিংবা এমন টিজার দিয়ে নিজের পুরনো ভাবমূর্তিটা ধরে রাখতে চাইছেন? মদনের উত্তর, ‘‘রাজনীতিতে বলতাম ‘ব্রিগেড চলো’। এখন বলছি, ‘দার্জিলিং চলো’। পৃথিবীতে রাজনীতির বাইরে তো কিছু নেই। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অনুগামী হয়ে মানুষের সঙ্গে থাকাটাই আমার কাজ।’’ মুখ্যমন্ত্রীর সাধের দার্জিলিং কিংবা কন্যাশ্রীকে নিজের পুজোর থিম কিংবা নাটকে বেছে নিলেও ‘বার্ধক্যজনিত’ কারণে তিনি আজ রাজনৈতিক আঙিনা থেকে কিছুটা দূরে বলেই দাবি করছেন প্রাক্তন মন্ত্রী।