• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

আনকোরা হাতে স্টিয়ারিং, প্রাণ গেল সহকর্মীর

fire brigade
দেবনারায়ণ পাল। নিজস্ব চিত্র।

দমকল কেন্দ্রের এক আধিকারিক গাড়ি চালানো অনুশীলন করছিলেন। সেই গাড়িই দুর্ঘটনার কবলে পড়ায় মৃত্যু হল তাঁরই এক সহকর্মীর। দেবনারায়ণ পাল নামের ওই ব্যক্তিকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে সেখানেই তাঁর মৃত্যু হয়। শুক্রবার বিকেলে ঘটনাটি ঘটেছে টালিগঞ্জ দমকল কেন্দ্রে।

দমকল সূত্রে জানা গিয়েছে, এ দিন বিকেল তিনটে নাগাদ নিজের অফিসের গেটে সেন্ট্রি ডিউটিতে ছিলেন বছর বাইশের দেবনারায়ণ পাল। সেই সময় দমকলকেন্দ্রে রাখা একটি গাড়ি চালাতে যান স্টেশন অফিসার কুন্দল সাহা। তখনই বিপত্তি ঘটে। হঠাৎই বেসামাল হয়ে ওই গাড়ি ধাক্কা মারে সামনের লাইটপোস্টে। গাড়ির ধাক্কায় ওই লাইটপোস্টটি ভেঙে দেবনারায়ণের মাথায় পড়ে। ঘটনাস্থলেই সংজ্ঞা হারিয়ে ফেলেন দেবনারায়ণ। মাথা ফেটে রক্তপাত হয়। সহকর্মীরা তাঁকে সঙ্গে সঙ্গে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানেই মৃত্যু হয় দেবনারায়ণের। খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে পৌঁছয় নেতাজিনগর থানার পুলিশ। কুন্দল সাহার বিরুদ্ধে একটি অনিচ্ছাকৃত খুনের মামলা রুজু করা হয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

আরও পড়ুন- করোনা আক্রান্ত দমকলমন্ত্রী সুজিত বসু, উপসর্গ নেই, তাই বাড়িতেই চিকিৎসাধীন

এই ঘটনায় দমকল কেন্দ্রের কর্মীরা রীতিমতো ক্ষুব্ধ। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক দমকলকর্মীর কথায়, ‘‘ওই অফিসারের দোষেই এই মর্মান্তিক ঘটনা ঘটেছে। কুন্দলবাবুর পদমর্যাদা অনুযায়ী ওই গাড়ি তাঁর চালানোরই কথা নয়। ওটি তাঁর ব্যক্তিগত গাড়ি নয়। কেন তিনি গাড়িটি চালাতে গেলেন তা কেউ বুঝে উঠতে পারছি না।’’ অন্য এক সহকর্মীর কথায়, ‘‘সম্ভবত গাড়ি চালানো প্রাকটিস করতে গিয়ে এই দুর্ঘটনা। এত দ্রুত ঘটনাটা ঘটেছে যে, দেবনারায়ণ সরে যাওয়ার সুযোগও পাননি।’’ এ ভাবে দেবনারায়ণের মৃত্যু মানতে পারছেন না তাঁর সহকর্মীরা।

এ বিষয়ে দমকলের ডিজি জগমোহন বলেন, ‘‘দেবনারায়ণ পাল নামে এক কর্মী মারা গিয়েছেন। কী ভাবে ঘটনাটি ঘটল তা নিয়ে বিভাগীয় তদন্ত শুরু হয়েছে।’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন