চার্জশিট জমা দেওয়ার পরে ঠিক সাত দিন। মাঝে শনি-রবি ছুটি বাদ দিলে আদতে পাঁচ দিন। তার মধ্যেই সম্পূর্ণ হল বিচারপ্রক্রিয়া। ১৬ বছরের কিশোরীকে ধর্ষণের ফলে তার অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ার ঘটনায় বৃহস্পতিবার যাবজ্জীবন কারাবাস হল এক যুবকের।

শিয়ালদহ পকসো বিশেষ আদালতের বিচারক জীমূতবাহন বিশ্বাস এই রায় দিয়েছেন। সাজাপ্রাপ্তের নাম বিশ্বজিৎ দে (৩২)। উল্লেখ্য, গত বছরই মধ্যপ্রদেশে একটি পকসো মামলায় ছ’বছরের এক বালিকাকে ধর্ষণে অভিযুক্তের সাজা হয়েছিল মাত্র তিন দিন বিচারের পরে। অন্য দিকে, শহরে একটি ধর্ষণের ঘটনায় চার্জশিটের পরে শিয়ালদহ আদালতেই ন’দিনে বিচারের দৃষ্টান্ত রয়েছে।

পুলিশ জানিয়েছে, বছর ষোলোর ওই কিশোরীকে ধর্ষণের ঘটনাটি উল্টোডাঙা থানা এলাকার। মেয়েটির মা পরিচারিকার কাজ করেন। সরকারি কৌঁসুলি বিবেক শর্মা জানান, স্থানীয় একটি কারখানার কর্মী বিশ্বজিৎ ওই কারখানাতেই নিয়মিত কিশোরীর সঙ্গে শারীরিক সংসর্গ করত। গত ২১ জুলাই কিশোরী অসুস্থ হওয়ার পরে জানা যায়, সে ছ’মাসের অন্তঃসত্ত্বা। অভিযোগ, এর পরেই বিশ্বজিৎ ওই নাবালিকার সঙ্গে সম্পর্ক অস্বীকার করে এবং যোগাযোগ বন্ধ করে দেয়। গত ২৪ জুলাই উল্টোডাঙা থানায় অভিযোগ করে মেয়েটির পরিবার। সে দিনই গ্রেফতার হয় বিশ্বজিৎ। ২৫ জুলাই আদালতে চার্জশিট পেশ করে পুলিশ।

এ দিনের রায়ে অভিযুক্তের যাবজ্জীবন সাজা ছাড়াও তাকে দু’লক্ষ টাকা জরিমানা করেছেন বিচারক। সেই টাকার ৯০ শতাংশ অভিযোগকারিণীকে দিতে হবে। এ ছাড়া, জেলা আইনি পরিবেষা কর্তৃপক্ষকেও বলা হয়েছে নির্যাতিতাকে পাঁচ লক্ষ টাকা দিতে।