গার্ডেনরিচ থানার পুলিশ ব্যারাকের শৌচাগার থেকে রবিবার এক মাঝবয়সি ব্যক্তির পচাগলা দেহ উদ্ধার হয়। ঘটনায় চাঞ্চল্য তৈরি হয়েছে। রাত পর্যন্ত মৃতের পরিচয় জানা যায়নি। পুলিশ একটি অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা রুজু করেছে।

পুলিশ সূত্রের খবর, গার্ডেনরিচ থানার ভিতরে পুলিশ ব্যারাকের পাশে দশটি শৌচাগার রয়েছে। এ দিন সকালে এক পুলিশকর্মী একটি শৌচাগারের সামনে গিয়ে দেখেন, দরজার নীচ দিয়ে এক ব্যক্তির পা বেরিয়ে রয়েছে। তিনি দরজায় ধাক্কা দিয়েও সাড়া না পেয়ে অন্যদের খবর দেন। এর পরে দরজা ভেঙে ওই ব্যক্তির পচাগলা দেহ উদ্ধার হয়। তদন্তকারীরা জানান, মৃতের বয়স আনুমানিক ৪০ বছর। থানা সূত্রের খবর, ওই পুলিশ ব্যারাকের শৌচালয়ে বহিরাগতদের অবাধ যাতায়াত। যা হওয়ার কথা নয়। এ দিন তা নিয়ে ক্ষুব্ধ ব্যারাকের পুলিশকর্মীরাও। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক পুলিশকর্মীর কথায়, ‘‘থানার আধিকারিকদের নজরদারির অভাবেই পুলিশ ব্যারাকের শৌচালয়ে বহিরাগতদের অবাধ যাতায়াত।’’

এ দিন ঘটনাস্থলে যান লালবাজারের হোমিসাইড শাখার আধিকারিকেরা। শৌচাগারের ভিতরে ওই ব্যক্তির কী ভাবে মৃত্যু হল, তা নিয়ে ধন্দে পুলিশ। ময়না-তদন্তের প্রাথমিক রিপোর্ট অনুযায়ী, অসুস্থতার কারণে হৃদ্‌যন্ত্র বিকল হয়ে ওই ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। লালবাজারের এক কর্তা বলেন, ‘‘ওই বহিরাগত কী ভাবে ও কখন শৌচাগারে ঢুকেছিলেন, তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।’’