চারতলা বাড়ির ছাদ থেকে নীচে পড়ে গুরুতর জখম হল দ্বাদশ শ্রেণির এক পড়ুয়া। ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার বিকেলে বাগুইআটিতে। আহত ছাত্রকে প্রথমে আশঙ্কাজনক অবস্থায় স্থানীয় একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়, পরে সেখান থেকে সল্টলেকের বেসরকারি হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রের খবর, এ দিন বিকেল চারটে নাগাদ বাগুইআটি ট্র্যাফিক গার্ড এলাকার কাছে একটি আবাসনের ছাদ থেকে পড়ে যায় ওই ছাত্র। যদিও কী ভাবে ওই ছাত্র ছাদ থেকে নীচে পড়ল তা নিয়ে ধোঁয়াশা তৈরি হয়েছে। হাসপাতাল সূত্রের খবর, ছাত্রের পরিবারের তরফে জানানো হয়েছে, ছাদের কার্নিশের কাছে চলে গিয়েছিল সে। সম্ভবত ছাদ থেকে পা পিছলে নীচে আবাসনের পিছন দিকে পড়ে যায় ওই পড়ুয়া।

আবাসনের পিছনে ঝোপ-জঙ্গল রয়েছে। স্থানীয়দের একাংশের কথায়, ঝোপ-জঙ্গলে পড়ায় কিছুটা হলেও রক্ষা পেয়েছে ছাত্রটি। রাস্তায় পড়লে বড়সড় বিপদ ঘটতে পারত।

পুলিশ সূত্রের খবর, এই ঘটনায় রাত পর্যন্ত অভিযোগ দায়ের হয়নি। ওই ছাত্রের এক আত্মীয়া সংবাদমাধ্যমের কাছে জানিয়েছেন, স্কুল থেকে পরীক্ষা দিয়ে বাড়ি ফিরেই পোশাক পাল্টে ছাদের চাবি নিয়ে ছাদে চলে যায় সে। পরীক্ষায় আশানুরূপ ফল না হওয়ায় মনমরা ছিল। মা ও ঠাকুরমাও তাকে আটকানোর চেষ্টা করেন। কিন্তু লাভ হয়নি। সে ছাদে চলে যায়। এর কিছু ক্ষণ পরেই নীচে ভারী কিছু পড়ার আওয়াজ পান তাঁরা।

ওই ছাত্রের কয়েক জন সহপাঠী জানিয়েছে, এ দিন স্কুলেও খুবই মনমরা হয়ে ছিল সে। কারও সঙ্গে বিশেষ কথাবার্তা বলেনি। কী হয়েছে জানতে চাইলে সে ব্যাপারেও চুপ করেই থেকেছে। তবে পরীক্ষায় কম নম্বর পাওয়ার বিষয়টি নিয়ে তারা কোনও মন্তব্য করতে চায়নি।

হাসপাতাল সূত্রের খবর, আহত ছাত্রের কোমর থেকে পা পর্যন্ত অংশে সাড়া মিলছে না। হাতেও আঘাত রয়েছে। চিকিৎসা চলছে।