বিদ্যুতের সংযোগ বন্ধ থাকায় বড়সড় অগ্নিকাণ্ড থেকে বাঁচল আর্মেনিয়ান স্ট্রিটের বাজার। দমকল জানাচ্ছে, রবিবার রাতে আগুনের খবর পেয়ে দমকলকর্মীরা বাজারে গিয়ে দেখতে পান, বিদ্যুতের সংযোগ বন্ধ। ফলে বিদ্যুতের তারের মধ্যে দিয়ে আগুন সর্বত্র ছড়িয়ে পড়ে বড় আকার নেয়নি। 

রবিবার রাতে ওই বাজারের একটি শাড়ির গুদাম ও একটি অফিসঘরে আগুন লেগেছিল। দমকল জানিয়েছে, দমকলকর্মীরা দু’দিক থেকে পাইপ টেনে আগুনের উৎসস্থল ওই দু’টি ঘরে জল দিতে শুরু করেন। তাতে আগুন জিনিসপত্রের মধ্যে দিয়ে চারিদিকে ছড়িয়ে না পড়ে দু’টি দোকানের মধ্যেই আটকে থাকে। তাতে অবশ্য ওই দু’টি দোকানেরই জিনিসপত্র ভস্মীভূত হয়ে যায়। 

ব্যবসায়ীরা জানান, রোজ রাতে বিদ্যুতের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করেই দোকান বন্ধ করেন ব্যবসায়ীরা। রবিবার ছুটির দিন থাকায় শনিবার রাত থেকেই বাজারের বিভিন্ন দোকানে বিদ্যুতের সংযোগ বন্ধ ছিল।

তবে বিদ্যুতের সংযোগ বন্ধ থাকলেও কী করে আগুন লাগল তা খতিয়ে দেখছে দমকল। প্রাথমিক ভাবে ধারণা, বিড়ি-সিগারেটের টুকরো থেকে আগুন লেগে থাকতে পারে। অন্তর্ঘাতের কোনও সম্ভাবনা রয়েছে কি না, তা-ও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। পুলিশ জানায়, ফরেন্সিকের রিপোর্ট পাওয়ার পরেই আগুন লাগার আসল কারণ জানা যাবে। তবে সোমবার রাত পর্যন্ত দমকলের তরফ থেকে কোনও অভিযোগ দায়ের হয়নি।

পুড়ে যাওয়া একটি শাড়ির দোকানের মালিক রাজেশ গৌউটি জানান, শতাব্দী প্রাচীন বাজারে অত্যাধুনিক অগ্নি-নির্বাপণ ব্যবস্থা করা ‘প্রায়’ অসম্ভব। তার উপরে দু’টি বাজারের মধ্যে কোনও ফাঁকা জায়গা নেই। দু’ফুটের মতো যে সরু গলি রয়েছে তাও বিভিন্ন দোকানের জিনিসে ঠাসা হয়ে থাকে। ফলে আগুন লাগলে সরু গলি দিয়ে দমকলের পাইপ টেনে আগুন নেভানো বেশ কঠিন।