স্বাস্থ্য পরীক্ষার কারণে কলকাতার তিনটি সেতু এবং হাওড়ায় বঙ্কিম সেতু আংশিক বন্ধ থাকলেও ছুটির দিন হওয়ায় প্রবল যানজট থেকে রক্ষা পেল শহর। তবে উত্তর কলকাতার অরবিন্দ সেতু বন্ধ থাকায় অটো নিয়ে চরম ভোগান্তির শিকার হতে হয়েছে বলে অভিযোগ যাত্রীদের।

বৃহস্পতিবার রাত থেকেই বন্ধ অরবিন্দ সেতু। ওই রাতে চেতলার লকগেট ব্রিজে ফাটল দেখা দেওয়ায় অনির্দিষ্ট কালের জন্য বন্ধ সেটিও। শুক্রবার প্রিন্স আনোয়ার শাহ রোড কানেক্টরে জীবনানন্দ সেতু ও হাওড়ার বঙ্কিম সেতুর একাংশও বন্ধ করা হয়। 

অরবিন্দ সেতু বন্ধ থাকার কারণে গাড়ি ঘুরিয়ে দেওয়ায় ভিআইপি রোড, লেক টাউন এবং যশোর রোডে চাপ বাড়ে। সেতু সংলগ্ন ক্যানাল ইস্ট এবং ক্যানাল ওয়েস্ট রোড ও সংলগ্ন গলিগুলিতে সমস্যা বাড়ে। কারণ, ওই দুই রাস্তার সংযোগকারী বেলি ব্রিজের উপর দিয়ে যাতায়াত করার সময়ে অটো ও ছোট গাড়ি আশপাশে ঢুকে পড়ে। সেতু বন্ধ থাকায় উল্টোডাঙা থেকে শোভাবাজার, জোড়াবাগান, আহিরীটোলা-সহ বেশ কয়েকটি রুটের যাত্রা বাধা পায়। কিছু অটো শোভাবাজার থেকে খন্না ও গৌরীবাড়ি পর্যন্ত চলেছে। অভিযোগ, নির্ধারিত ভাড়ার দু’-তিন গুণ বেশি হেঁকেছে অটোগুলি। উল্টোডাঙা স্টেশন থেকে সল্টলেক, পাঁচ নম্বর সেক্টরে যাওয়া অটো নিয়েও একই অভিযোগ যাত্রীদের।

অন্য দিকে জীবনানন্দ সেতু বন্ধ থাকায় বাইপাসে গাড়ির গতি শ্লথ হয়ে পড়ে। প্রিন্স আনোয়ার শাহ রোড কানেক্টরের বদলে সন্তোষপুর এবং গড়িয়াহাট হয়ে বাইপাসে ছোট গাড়ি ও বাস ঘুরিয়ে দেওয়া হয়। অন্য দিকে, চেতলা লকগেট সেতু বন্ধ করায় দুর্গাপুর সেতু এবং টালিগঞ্জ সার্কুলার রোডেও চাপ বাড়ে। বঙ্কিম সেতুর আংশিক বন্ধ করে বিকল্প রাস্তায় গাড়ি চালানো হয়। পুলিশের দাবি, যাত্রীদের কিছুটা সমস্যা হলেও কোনও যানজট হয়নি।