• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

কিছু ফি কমবে, জানালেন বিশপ

Fees
প্রতীকী ছবি

‘চার্চ অব নর্থ ইন্ডিয়া’র অধীনস্থ মিশনারি স্কুলগুলি এপ্রিল থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত কম্পিউটার, স্পোর্টস এবং লাইব্রেরি ফি ২৫ শতাংশ মকুব করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এর বাইরে কোনও ফি মকুব করা সম্ভব নয় বলে বুধবার জানিয়েছেন বিশপ পরিতোষ ক্যানিং।

বুধবার ‘চার্চ অব নর্থ ইন্ডিয়া’র স্কুলগুলিকে নিয়ে বৈঠকে বসেছিলেন বিশপ। বৈঠক শেষে তিনি বলেন, ‘‘অভিভাবকদের কষ্টের কথা মাথায় রেখেই আমরা ফি বাড়াইনি। তাঁদের কথা মাথায় রেখেই আবার আলোচনায় বসলাম। কম্পিউটার, স্পোর্টস এবং লাইব্রেরি ফি আমরা ২৫ শতাংশ মকুব করলাম, এপ্রিল থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত।’’ এ দিনের বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন লা মার্টিনিয়ার, সেন্ট জনস ডায়োসেশন, সেন্ট জেমস-সহ বিভিন্ন স্কুলের কর্তৃপক্ষ। বিশপ জানান, অভিভাবকেরা যে ফি দেন, তাতেই স্কুলগুলি চলে। এ দিন স্কুলগুলির পরিস্থিতি তাঁরা পর্যালোচনা করেছেন। দেখা যাচ্ছে, আর কোনও ভাবেই ফি কমানো সম্ভব নয়। তবে কারও যদি ফি দিতে অসুবিধা হয়, তিনি ব্যক্তিগত ভাবে স্কুল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেন। এর আগে বিশপ মুখ্যমন্ত্রীকে ফি কমানোর বিষয়ে চিঠি দিয়েছিলেন। সেখানে জানিয়েছিলেন, পড়ুয়াদের ফি থেকে শিক্ষকদের বেতন দেওয়া হয়। তাই ফি মকুব করলে অনেক স্কুল বন্ধই করে দিতে হবে।

করোনার এই পরিস্থিতিতে সব স্কুল-কলেজ এখন বন্ধ। বিভিন্ন বেসরকারি স্কুল এই সময়ে ফি দিতে অভিভাবকদের বাধ্য করছে বলে বার বার অভিযোগ উঠেছে। ফি বাড়ানোরও চেষ্টা হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের কাছেও অভিভাবকেরা অভিযোগ জানিয়েছিলেন। শিক্ষামন্ত্রী বার বার স্কুলগুলিকে অনুরোধ জানিয়েছেন ফি নেওয়ার বিষয়টি বিবেচনা করার জন্য। যাতে এই পরিস্থিতি কেটে গেলে অভিভাবকেরা ফি দিতে পারেন, সে দিকটাও খেয়াল রাখতে বলা হয়েছিল। এই সময়ে ফি বৃদ্ধি যাতে না হয়, সেই আর্জি জানিয়েছিলেন তিনি। এমনকি, মুখ্যমন্ত্রীও আবেদন জানিয়েছিলেন এ নিয়ে। 

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন