পার্টি অফিসে আটকে রেখে দুই পুলিশকর্মীকে মারধর করে খুনের চেষ্টার অভিযোগ উঠল বিজেপি নেতা রাকেশ সিংহের বিরুদ্ধে। শনিবার, খিদিরপুরের অরফ্যানগঞ্জে। পুলিশ ওই ঘটনায় তিন জনকে গ্রেফতার করলেও মূল অভিযুক্ত রাকেশ সিংহ পলাতক। অমিত শাহের রোড শোয়ের দিন কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ে ও বিদ্যাসাগর কলেজে গোলামাল এবং বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙার ঘটনাতেও রাকেশের নাম উঠেছে। পুলিশ খুঁজছে তাঁকে।  

পুলিশ জানিয়েছে, নির্বাচন কমিশনের নির্দেশ মতো বিভিন্ন মামলায় অভিযুক্ত রাকেশের উপরে নজর রাখছেন দুই পুলিশকর্মী। অভিযোগ, এ দিন অরফ্যানগঞ্জে রাকেশের বাড়ির সামনে ওই দুই পুলিশকে আটকান অভিযুক্ত নেতা, তাঁর ছেলে ও সঙ্গীরা। অভিযোগ, দুই পুলিশকর্মীকে একটি রাজনৈতিক দলের অফিসে নিয়ে গিয়ে মারধর করা হয়। খবর পেয়ে কেন্দ্রীয় বাহিনীর সদস্যদের নিয়ে পুলিশ গিয়ে উদ্ধার করে তাঁদের। পরে ওয়াটগঞ্জ থানায় কনস্টেবল অনুপকুমার ঘোষ রাকেশের বিরুদ্ধে খুনের চেষ্টার অভিযোগ করেন। রাকেশের বাড়িতে অভিযান চালিয়ে তাঁর তিন সঙ্গী অরুণ সিংহ, অরূপ চৌধুরী ও রবি দাসকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বিজেপির রাজ্য সাধারণ সম্পাদক প্রতাপ বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘‘রাকেশ সিংহ কী করেছেন, জানি না। তবে এ রাজ্যে পুলিশ জুলুম চালাচ্ছে। রাগ হওয়া স্বাভাবিক। যদিও আইন হাতে তুলে নেওয়া উচিত নয়।’’